টাঙ্গাইলে উৎপাদন হচ্ছে পাট পাতার চা

131

স্টাফ রিপোর্টার ॥
দিনে দিনে বাড়ছে পাটের নানামুখী ব্যবহার। এরই নতুন সংযোজন পাটপাতার চা। সরকারি কয়েকটি উদ্যোগ কাজে না এলেও বেসরকারি উদ্যোক্তা হিসাবে পুরোপুরি অর্গানিক পদ্ধতিতে পাটপাতার চায়ের উৎপাদন করছে টাঙ্গাইলের জাকির হোসেন তপু। আধুনিক টি-ব্যাগ পদ্ধতিতে তা বাজারজাতও করা হচ্ছে। পাটপাতার চায়ের বহুমুখী উপকারের কারণে এটি দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কয়েক বছর ধরে নানা উদ্যোগের ফসল পাটপাতার চা।




জানা যায়, টাঙ্গাইল সদর উপজেলা এলাসিন এলাকায় পাটপাতার চা নিয়ে আট বছর ধরে কাজ করছে খাদ্য ও পুষ্টি বিষয়ক কোম্পানি মহিমা প্রোডাক্টস। এই কারখানায় পাট পাতা বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় প্রস্তুত করে জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টারে (জেডিপিসি) কোম্পানিটির পাটপাতার চা বিক্রি করা হচ্ছে। পাশাপাশি লাজফার্মা ও কয়েকটি বিপণি বিতানেও তা বিক্রি হচ্ছে। পাটপাতার চা সরকারি প্রতিষ্ঠানও কিনছে। স্কটল্যান্ডের গ¬াসগোতে জলবায়ু সম্মেলনে অতিথিদের জন্য উপহার হিসাবে বাংলাদেশ মহিমা প্রোডাক্টসের পাটপাতার চা পাঠিয়েছে বলে জেডিপিসির একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।




মহিমা প্রোডাক্টসের উদ্যোক্তা জাকির হোসেন তপু টিনিউজকে বলেন, দেশীয় পাটের পাতা থেকে শতভাগ অর্গানিকভাবে আমরা পাটপাতার পানীয় বা চা প্রস্তুত করে আসছি। গুঁড়ো পাতা নয় একেবারে স্বাস্থ্যসম্মত টি-ব্যাগ আকারে বাণিজ্যিকভাবে বাজারজাত করা হচ্ছে। উপকারী এ পানীয়ের ব্যবহার বৃদ্ধি পেলে স্বাস্থ্যগত দিক থেকে মানুষ যেমন উপকৃত হবেন। একইভাবে পাটের ব্যবহারও আরেক ধাপ এগিয়ে যাবে। এতে আমাদের অর্থনৈতিক সাফল্য আসবে। বিদেশেও আমরা পাটপাতার চা রপ্তানি করতে পারব। এই চা কারখানায় কাজ করে পড়াশোনার পাশাপাশি অনেকের কর্মসংস্থান হয়েছে বলে জানান কর্মচারীরা।
দর্শনার্থীরা বলছে, এই চা অনেক উপকারী। তাই বিভিন্ন জায়গা থেকে এই চা কিনে খাওয়া হয়।




টাঙ্গাইল বহুমূখী পাট শিল্প উদ্যোক্তা সেবাকেন্দ্র (জেইএসসি) সেন্টার ইনচার্জ মোহাম্মদ মেহের হুসাইন টিনিউজকে বলেন, পাট চা উৎপাদনে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে,প্রতিটি জেলায় জেলা প্রশাসনকে পাটপাতা চা ব্যবহারের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। পাটপাতার চা পানের উপকারিতা নিয়ে ব্রিটিশ জার্নালে নানা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, পাটপাতার চা অ্যান্টি অক্সিডেন্টে পরিপূর্ণ। এটি সেবনে ডায়াবেটিস রোগের বিশেষ উপকার হয়। শরীর ইনফ্লামেশন কমিয়ে ওজন কমায়, ক্যানসার, পেটের বিভিন্ন পীড়া, আলসার, উচ্চ রক্তচাপ, রক্তে কোলস্টেরল নিয়ন্ত্রণে এটি কাজ করে। পাশাপাশি ভালো ঘুম হতে সহায়তা করে। জ্বর, ঠাণ্ডা, ফ্লু নিয়ন্ত্রণ, দৃষ্টিশক্তির প্রখরতা বৃদ্ধি, দাঁতের সুরক্ষা, পায়ের অসাড়তা দূর, অ্যাজমা নিয়ন্ত্রণে এটি অদ্বিতীয়।

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ