টাঙ্গাইলে আহবায়ক কমিটির প্রতিবাদে বিএনপির একাংশের সংবাদ সম্মেলন

422

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির নব গঠিত আহ্বায়ক কমিটির প্রতিবাদ জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জেলা বিএনপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি খন্দকার সাইদুল হক সাদু। বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) বিকেলে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে খন্দকার সাইদুল হক দাবি করেন, আহ্বায়ক কমিটির ৮/১০ জন ছাড়া সকলেই গত ছয় বছর যাবত বিএনপির রাজনৈতিক কর্মকান্ডে তারা জড়িত ছিলো না। কমিটির অধিকাংশ ব্যক্তিবর্গ সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে স্বক্ষতা রেখে ব্যবসা বাণিজ্যসহ নানা প্রকার সুযোগ সুবিধা ভোগ করেছে। যে সমন্ত নেতাকর্মী ওয়ার্ড কমিটির সদস্য হওয়ার যোগ্য নয়, তাদের আহ্বায়ক কমিটিতে রাখা হয়েছে। বিগত ২০১৭ সালে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ঘোষণা অনুযায়ি টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে আয়োজিত সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচিতে হামলা করে ভাংচুর করে। আওয়ামী লীগের এজেন্ট দ্বারা গঠিত আহ্বায়ক কমিটি পুর্নগঠনের দাবি জানান খন্দকার ছাইদুল হক সাদু।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাদেকুল আলম খোকা, আবুল কাশেম ও আনিছুর রহমান, তাঁতী দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, শহর বিএনপির সাবেক নেতা সেলিম রেজা প্রমুখ।
এদিকে বুধবার (৩ নভেম্বর) রাতে আগামী তিন মাসের জন্য এ্যাডভোকেট আহমেদ আযম খানকে আহ্বায়ক ও মাহমুদুল হককে সদস্য সচিব করে ৪৬ সদস্য বিশিষ্ট টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবির রেজভী। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলো- যুগ্ম আহ্বায়ক হাসানুজ্জামিল শাহীন, ফরহাদ ইকবাল, কাজী শফিকুর রহমান লিটন, অমল ব্যানার্জি, দেওয়ান সফিকুল ইসলাম, সদস্য বেনজির আহমেদ টিটু, শ্যামল হোড়, আলী ইমান তপন, সাইদুল হক সাদু প্রমুখ।
উল্লেখ্য, বিগত ২০১৭ সালের (২৬ মে) শামুসুল আলম তোফাকে সভাপতি ও ফরহাদ ইকবালকে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা বিএনপির কমিটি গঠন করা হয়েছিলো।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ