টাঙ্গাইলে অনলাইন জুয়ার নেশায় মত্ত হাজারো তরুণ ॥ বহু পরিবার নিঃস্ব

177

হাসান সিকদার ॥
টাঙ্গাইলে অনলাইন জুয়ায় আসক্ত হাজারো তরুণ। ছাপড়া ঘর, কুলিং কর্নার কিংবা চায়ের দোকানে বসেই চলছে এসব জুয়াবাজি। মোবাইল ফোনের ব্রাউজার ব্যবহার করে জুয়ার ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে চলছে বিকাশের মাধ্যমে টাকার লেনদেন। বিট ৩৬৫, কলিনস ৭৬১০ এবং সিভেটভেটসি এ্যাকাউন্টের মাধ্যমে জুয়ার টাকা ডলার-রূপীতে অবৈধভাবে লেনদেন হচ্ছে। আর বুঝে না বুঝে অনেকেই এই নেশায় পড়ে নিঃস্ব হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অভিযান চালিয়েও নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না তাদের।

টাঙ্গাইলের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী টিনিউজকে জানায়, ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জুয়া পরিচালনার সঙ্গে জড়িয়েছে অনেক উচ্চবিত্তের লোকজন। তারা মোবাইল ব্যাংকিং এ্যাকাউন্টের মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা লেনদেন করছে। এই টাকা চলে যাচ্ছে দেশের বাইরে।

 

জানা গেছে, টাঙ্গাইল জেলার প্রতিটি উপজেলায় বিভিন্ন স্থানে দেদারছে চলছে এসব অনলাইন জুয়া। আর এলাকাভিত্তিক গড়ে উঠেছে ফেসবুক-হোয়াটসএ্যাপ গ্রুপ। দেশে বিটিআরসি অনেক সাইট বন্ধ করে দিলেও প্রক্সি সার্ভার ব্যবহার করে জুয়াড়িরা এসব অবৈধ কর্মকান্ড পরিচালনা করায় মূল অপরাধীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যায়। এই অনলাইন জুয়ার নেশা মাদকের আসক্তির চেয়েও ভয়াবহ। নেশায় মত্ত হলে নিঃস্ব হওয়া ছাড়া বিকল্প নেই। অনেক অভিজাত পরিবারের সন্তানরা এই জুয়ায় মত্ত রয়েছে।

শুধু তাই নয়, এদের বিভিন্ন গ্রুপ-উপগ্রুপ হয়ে এজেন্টের মাধ্যমে এসব জুয়া চলে গ্রামাঞ্চল পর্যন্ত। এ টাকার অবৈধ লেনদেন মোবাইল ব্যাংকিং এ্যাকাউন্টের মাধ্যমে করা হয়। এভাবে সাধারণ ব্যবহারকারীদের টাকা বিভিন্ন এজেন্টের মাধ্যমে দেশের বাইরেও চলে যায়।

 

ব্রেকিং নিউজঃ