টাঙ্গাইলে অটোরিক্সা চালককে পিটালেন হাইবিড ছাত্রলীগ নেতা ছিবা

642

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলে এক অটোরিক্সা চালককে পিটিয়েছে হাইবিড ছাত্রলীগ নেতা আকিবুল ইসলাম ছিবা। বুধবার (১০ নভেম্বর) বিকেলে পৌর শহরের প্রাণকেন্দ্র জেলা সদর রোডে এ ঘটনাটি ঘটেছে। ছিবা টাঙ্গাইল পৌর শহরে পশ্চিম আকুর টাকুর পাড়ার আলম আকন্দের ছেলে ও শহর ছাত্রলীগের কথিত সাংগঠনিক সম্পাদক। অথচ জেলা ছাত্রলীগ জানায়, শহর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আকিবুল ইসলাম ছিবা নামে কেউ নেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন একটি ভিডিও ভাইরাল নিয়ে শহর জুড়ে যেমন বইছে আলোচনা ও সমালোচনা ঝড়, একই অবস্থা নেটিজেনদের মাঝেও।
ভিডিও ও স্থানীয়দের তথ্যে জানা যায়, বুধবার (১০ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে পৌর শহরের প্রাণকেন্দ্র জেলা সদর রোডের পৌর উদ্যান সম্মুখে এক অটোরিক্সার সাথে কথিত ওই হাইবিড ছাত্রলীগ নেতা ছিবার মোটরসাইকেলে ধাক্কা লাগে। এতে কারো কোন ক্ষতি না হলেও ছাত্রলীগের ওই কথিত নেতা মোটরসাইকেল থেকে নেমে অটোচালকের চাবি আটকায় ও মারধর করে। এ সময় স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন ওই ছাত্রলীগ নেতা। ওই চিত্রধারণ ও মারধর করতে বাধা দেয়ায় স্থানীয় এক সংবাদকর্মীর সাথেও বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে সে। এক পর্যায়ে মারধরের ধারণকৃত ভিডিওটি নষ্ট করতে হুমকি দেয় সে। এ সময় পথচারিরা এগিয়ে আসলে ওই হাইবিড ছাত্রলীগ নেতা পালিয়ে যায়। ঘটনার পরপরই অটোচালক স্থান ত্যাগ করায় তার নাম ঠিকানা পাওয়া যায়নি।
সংবাদকর্মী নওশাদ রানা সানভী জানান, রাস্তা দিয়ে যাওয়ার পথে অটোচালককে মারধরের ঘটনাটি চোখে পড়ে। এ সময় আমি এগিয়ে গিয়ে বাধা দেয়া চেষ্টা করি। এতে ওই হাইবিড ছাত্রলীগ নেতা আমার উপর ক্ষুব্ধ হন। এছাড়াও আমি মুঠোফোনে তর্কবিতর্কের একটি অংশ ধারণ করায় এ কারণে সে আরো উত্তেজিত হয়ে ওঠে। তিনি ভিডিওটি নষ্ট করতে বিভিন্ন ধরণের হুমকি ধামকি দেয়াসহ সহকর্মীদের আমার মুঠোফোনটি ছিনিয়ে নেয়ার আদেশ দেয়। তবে উপস্থিত জনতার কারণে মুঠোফোন ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা ব্যর্থ হয়। ধারণকৃত ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের আমার ব্যক্তিগত ফেসবুক ফ্যান পেইজে পোস্ট করি। তা মুহুর্তেই ভাইরাল হয়।
টাঙ্গাইল শহর ছাত্রলীগের হাইবিড নেতা আকিবুল ইসলাম ছিবা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রাগের মাথায় ও আমরা কিছুটা আঘাতপ্রাপ্ত হওয়ায় ওই ঘটনাটি ঘটেছে। এতে আমি দুঃখিত ও লজ্জিত। এছাড়াও সে শহর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দাবি করেছে।
আকিবুল ইসলাম ছিবা শহর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নয়, সে ছাত্রলীগের একজন কর্মী বলে স্বীকার করেছেন জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক তানভীরুল ইসলাম হিমেল।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ