টাঙ্গাইলের ১২টি উপজেলায় করোনার টিকা নিয়েছেন ৩৪০২০ জন

91

এম কবির ॥
টাঙ্গাইলের ১২টি উপজেলায় বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত করোনার টিকা নিয়েছেন ৩৪ হাজার ২০ জন। জেলার মোট ৪২টি কেন্দ্রে টিকা প্রদান কার্যক্রম চলছে।
টাঙ্গাইল সিভিল সার্জন অফিস সূত্র টিনিউজকে জানায়, গত রোববার (৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে টাঙ্গাইলে ১২টি উপজেলায় একযোগে করোনা ভাইরাসের টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে। গত (৪ ফেব্রুয়ারি) প্রথম দফায় টাঙ্গাইলে ১ লাখ ২০ হাজার ডোজ করোনা ভ্যাকসিন আসে। প্রথম পর্যায়ে করোনা মোকাবিলায় নিয়োজিত চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী, সরকারি অন্যান্য সংস্থার সম্মুখসারির কর্মী, বয়োজ্যেষ্ঠ জনগোষ্ঠী, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, সরকারের অত্যাবর্শক্রীয় অন্যান্য এজেন্সির সদস্যরা করোনার টিকা পাবেন। পর্যায়ক্রমে ১৮ বছরের উপরে সকলেই টিকা পাবেন। ১৮ বছরের নিচে, গর্ভবতী মা ও দুগ্ধদানকারী, গুরুত্বর অসুস্থ ও হাসপাতালে ভর্তিকৃত ব্যক্তিরা টিকা পাবেন না। টাঙ্গাইল ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ৯টি কেন্দ্র এবং ১১টি উপজেলার প্রতিটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনটি করে বুথ স্থাপন করা হয়েছে। প্রতি বুথে দুইজন করে টিকাদান কর্মী ও চারজন স্বেচ্ছাসেবক দায়িত্ব পালন করছেন।
এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. আবুল ফজল মো. শাহাবুদ্দিন খান টিনিউজকে বলেন, টাঙ্গাইল জেলায় বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত কোভিড-১৯ টিকা নিয়েছেন ৩৪০২০ জন। এদের মধ্যে টাঙ্গাইল সদরে ১০০৯১, ঘাটাইলে ৪০৬৫, মির্জাপুরে ৩১৩০, নাগরপুরে ২১৯৩, ভূঞাপুরে ২০৯২, দেলদুয়ারে ১৯৬৯, মধুপুরে ১৯১৫, গোপালপুরে ১৭৯০, কালিহাতীতে ১৭৪৫, ধনবাড়িতে ১৭৪৫, বাসাইলে ১৭২৪ ও সখিপুরে ১৫৬১ জন রয়েছে।
এদিকে টাঙ্গাইলে গত ২৪ ঘন্টায় বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) নতুন করে ১ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে টাঙ্গাইল সদরে ১ জন রয়েছে। করোনা ভাইরাসের পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইলের বিভিন্ন উপজেলা থেকে ২৬ হাজার ৭৯৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৪৬ জনের নমুনা পাঠানো হয়েছে। বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত ৩৮৮৩ জন করোনা ভাইরাস রোগী সনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে টাঙ্গাইল সদরে ১৪২৬, মির্জাপুরে ৫৯১, কালিহাতীতে ২৬৩, মধুপুরে ২৫৩, ঘাটাইলে ২৫১, সখীপুরে ২৩২, ভূঞাপুরে ১৮৯, ধনবাড়ীতে ১৭৩, গোপালপুরে ১৫৭, দেলদুয়ারে ১৪৩, নাগরপুরে ১০৪ ও বাসাইলে ১০১ জন রয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে কোন রোগী টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের ৫০ বেডের করোনা ডেডিকেডেট ইউনিটে ভর্তি নেই। আক্রান্তদের মধ্যে ৩৭০০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছে। এরা হলেন- টাঙ্গাইল সদরে ১৩৩৬, মির্জাপুরে ৫৮০, কালিহাতীতে ২৫৬, ঘাটাইলে ২৪০, মধুপুরে ২৩৮, সখীপুরে ২২৯, ভূঞাপুরে ১৮৭, ধনবাড়ীতে ১৬৭, গোপালপুরে ১৪০, দেলদুয়ারে ১৩৮, নাগরপুরে ১০০ ও বাসাইলে ৮৯ জন।
বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত জেলায় মোট ৩৮৮৩ জনের দেহে করোনার ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৩৭০০ জন। সুস্থতার হার ৯৫.২৮ ভাগ। এখন পর্যন্ত জেলায় মোট ৬৩ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। টাঙ্গাইল সদরে ২৮, ঘাটাইলে ৮, মির্জাপুরে ৬, দেলদুয়ার ৪, ধনবাড়ীতে ৩, কালিহাতীতে ৩, গোপালপুরে ২, ভুঞাপুরে ২, সখীপুরে ২, বাসাইলে ২, মধুপুরে ২ ও নাগরপুরে ১ জন। মৃত্যুর হার ১.৬২ ভাগ।
গত (৮ এপ্রিল) জেলায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। জেলায় এপ্রিল মাসে ২৪ জন, মে মাসে ১৪১ জন, জুন মাসে ৪৪৭ জন, জুলাই মাসে ১০২৬ জন, আগস্ট মাসে ৯৬৪, সেপ্টেম্বর মাসে ৫২৯, অক্টোবর মাসে ১৫২, নভেম্বর মাসে ২০৫, ডিসেম্বরে ২১৮, জানুয়ারিতে ১৩৪ এবং এখন পর্যন্ত (১৭ ফেব্রুয়ারি) ৩৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মাস ভিত্তিক করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা কমছে। এখন পর্যন্ত আক্রান্তদের মধ্যে কোন রোগী টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের ৫০ বেডের করোনা ডেডিকেডেট ইউনিটে ভর্তি নেই।

 

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ