জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন অনুষ্ঠিত- আবুল কাশেম সভাপতি, মোজাম্মেল হক সম্পাদক

278

ersadফাহাদ শাওনঃ

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ এমপি বলেছেন, দেশের নির্বাচন কমিশন বিএনপি ও বর্তমান সরকারের সময়ে মেরুদন্ডহীন হয়ে পড়েছে। সরকার স্থানীয় নির্বাচন কেন দলীয়ভাবে করতে চাচ্ছে? এতে করে সহিংসতা ও বিশৃঙ্খলা বাড়বে। এভাবে নির্বাচন করে চিরদিন তারা ক্ষমতায় থাকতে চায়। কিন্তু এভাবে কোন দিন নির্বাচন করা যায় না। দেশে এখন অপশাসন, হত্যা, গুমের রাজনীতি চলছে। আরেক দল বিএনপিরতো এখন অস্তিতই খুঁজে পাওয়া যায় না। বর্তমান এমপিরা গুলি করে শিশুকে, ইয়াবা সম্প্রাট হয়। এতে করে সরকারের দূর্নাম হচ্ছে। হটাৎ করে বিদেশীরা শান্তিপূর্ণ দেশে কেন রেডএলার্ট জারি করে দিচ্ছে। দেশে দুই বিদেশী এবং পুলিশকে হত্যা করা হয়েছে। দেশে আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি হয়েছে। যে পুলিশ আমাদের রক্ষা করবে, তাদেরই নিরাপত্তা নেই। তাহলে সরকার কিভাবে দেশ পরিচালনা করবে। এজন্য দেশের মানুষ এখন পরিবর্তন চাচ্ছেন।
সোমবার দুপুরে স্থানীয় ভাসানী হলে টাঙ্গাইল জেলা জাতীয় পার্টির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।
এরশাদ আরও বলেন, বর্তমান সংসদে এখন সরকারি দল আওয়ামী লীগ এবং বিরোধী দল জাতীয় পার্টি আছে। এছাড়া অপর বিরোধী দল বিএনপি মাঠে আছে। টিআইবি রিপোর্ট দিয়েছে সংসদে বিরোধী দল তেমন ভুমিকা রাখতে পারছে না। তাদের কাছে আমার প্রশ্ন- আমি ক্ষমতা হস্তান্তরের পর কোন সংসদ প্রাণবন্ত ও চালু ছিল। একটি সংসদও প্রাণবন্ত ও চালু ছিল না। বিএনপি ক্যামেরা ভাংচুর ও ফাইল ছুরে মেরেছে। তবে প্রথমবারের মতো আমরা সংসদে থেকে সংসদ প্রাণবন্ত করে রেখেছি।
খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমাকে জেলে রেখে আপনি অনেক অত্যাচার করেছেন। কিন্তু আজকে আপনার নিজের ছোট ছেলে মারা গেছে তার লাশও দেখলেন না। আর বড় ছেলে বোমা হামলা মামলার অভিযোগে বিদেশে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। পাপের শাস্তি ভোগ করছেন এখন আপনি। কিন্তু আমি এখন অনেক ভাল আছি।
জাতীয় পার্টিও আমলে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সে সময়ে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। কোথাও কোন দলীয়করণ হয়নি। পুলিশ দিয়ে গুলি করে মানুষ হত্যা করা হয়নি। সীমিত সম্পদের মধ্য দিয়েও রাষ্ট্র পরিচালিত হয়েছে। আমরা যদি মানুষ হত্যা, খুন, গুম করতাম তাহলে জেলে থেকেও ৫টি আসনে জয়লাভ করতে পারতাম না। আজ যে উন্নয়ন দেখছেন দেশে তা সবই এরশাদের সরকারের সময়ে হয়েছে। দেশে উপজেলা গঠন করেছিলাম। পরে বিএনপি এসে উপজেলা বাতিল করে দেয়। এতে কি লাভ হয়েছে বিএনপির। দেশের প্রতিটি উপজেলায় হাসপাতাল করেছি। এলজিইডি’র সৃষ্টিকর্তা আমি। এর মধ্য দিয়ে দেশে পাকা রাস্তা করে উন্নতি করেছি। যমুনা সেতু করেছিলাম বলে এখন উত্তরবঙ্গের ১৮টি জেলার মানুষ রাজধানী ঢাকায় দ্রুত ও সহজে চলাচল করতে পারছে। তাই জাতীয় পার্টি আবার ক্ষমতায় এলে দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হবে, দেশ উন্নতি করবে। দেশের ১৬ কোটি মানুষ চেয়ে আছে জাতীয় পার্টির দিকে।
টাঙ্গাইল জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক আবুল কাশেমের সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবুল এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য পানি সম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আব্দুস সবুর আসুদ, জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সালাম চাকলাদার প্রমুখ।
সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ আবুল কাশেমকে সভাপতি এবং মোজাম্মেল হককে সাধারণ সম্পাদক ঘোষনা করেন।

ব্রেকিং নিউজঃ