জিয়া মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন বাই চান্স -মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক

114

Tangail-Bhuapur-27.10.2015স্টাফ রিপোর্টারঃ
মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক বলেছেন, জিয়া মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন বাই চান্স। স্বাধীনতা বিরোধীদের পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে তিনি সে কথা প্রমাণ করেছেন। মন্ত্রী মঙ্গলবার দুপুরে  টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন উদ্ধোধন শেষে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
মন্ত্রী আরো বলেন, যারা এতিমদের টাকা মেরে খেয়েছেন তারা বিদেশে গিয়েও রেহাই পাবেন না। দেশে ফিরলেই তাদের স্থান হবে লাল দালান। আগামীতে মুক্তিযোদ্ধারা ঈদ বোনাস পাবেন। বিনা মূল্যে চিকিৎসা সেবা পাবেন। প্রতি উপজেলায় ২৫টি করে আবাসন সুবিধা নির্মান করা হবে। মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের জন্য আরো স্মৃতি সৌধ নির্মাণ করা হবে। সরকারের ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে বাংলাদেশ আগামীতে সিঙ্গাপুর অথবা মালয়েশিয়ায় পরিণত হবে।
মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুস সোবহান তুলার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় এমপি খন্দকার আসাদুজ্জামান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ভবন নির্মান প্রকল্পের প্রধান পরিচালক মুজিবুল হক সমাজি, উপজেলা চেয়ারম্যান ইউনুস ইসলাম তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হালিমুজ্জামান তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম তালুকদার, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার খন্দকার জহুরুল হক ডিপটি, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক আনোয়ার হোসেন, এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমানসহ স্থানীয় ও জেলার সরকার দলীয় নেতৃবৃন্দ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে টাঙ্গাইল এলজিইডি’র তত্ত্বাবধানে ও ব্যবস্থাপনায় এক কোটি ৯৭ লাখ টাকা ব্যয়ে তিনতলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন উদ্ধোধন করা হয়।
এছাড়া মন্ত্রী মঙ্গলবার বিকালে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের উদ্বোধন করেন। ভবনের পাশে নির্মিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর ওই ভবনের উদ্বোধন করেন। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে এলজিইডি ২ কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের কাজ গত ২৬ অক্টোবর সম্পন্ন হয়।

ব্রেকিং নিউজঃ