চৈত্র সংক্রান্তি আজ ॥ বাংলা নববর্ষ কাল

5

এম কবির ॥
১৪২৬ বঙ্গাব্দের শেষ দিন আজ সোমবার (১৩ এপ্রিল)। বাংলার রীতি অনুসারে বর্ষ বিদায়ের বিশেষ দিন চৈত্র সংক্রান্তি। কবি জীবনানন্দের ভাষায়, ‘পুরনো সে-নক্ষত্রের দিন শেষ হয়/নতুনেরা আসিতেছে ব’লে…।’
আসছে নতুন বছর ১৪২৭ বঙ্গাব্দ। আগামীকাল মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) বর্ষবরণের দিন পহেলা বৈশাখ। এ কারণেই জীর্ণ পুরাতনকে বিদায় আর নতুনকে বরণের প্রস্তুতিতে আজ সোমবার (১৩ এপ্রিল) মুখর থাকার কথা টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন জনপদগুলো। কিন্তু মরণব্যাধি করোনা ভাইরাসের (কভিড-১৯) প্রাদুর্ভাবের কারণে জনসমাগম এড়ানোর জন্য বর্ষ বিদায় ও নববর্ষ বরণের সব অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে।
বাংলা সনের সমাপনী মাস চৈত্রের শেষ দিনটি সনাতন বাঙালির লৌকিক আচারের চৈত্র সংক্রান্তি। টাঙ্গাইলে মধুপুরে গড় এলাকায় দিনটি ব্যাপক আয়োজনে উদ্্যাপন করলেও এবার কোনো আয়োজন নেই।
টাঙ্গাইল জেলার সকল প্রকার অনুষ্ঠান এরই মধ্যে বাতিল করা হয়েছে। পহেলা বৈশাখে দেশীয় নতুন পোশাক পরে, বাঙালি খাবার খেয়ে ঘুরে বেড়ানো রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ কারণে শহরের বিভিন্ন মার্কেটে রীতিমতো ভিড় থাকত এ সময়টিতে। এমনকি দরিদ্র মানুষও নতুন পোশাকের জন্য ভিড় করত ফুটপাতের দোকানগুলোতে। কিন্তু করোনার কারণে সব কিছু বন্ধ ঘোষণা করায় এবং নাগরিকদের যার যার ঘরে অবস্থান করার নির্দেশ দেয়ার কারণে মার্কেট থেকে শুরু করে ফুটপাতে এখন নিস্তব্ধতা বিরাজ করছে। এবার বর্ণিল পোশাক পরা প্রাণোচ্ছল মানুষের ঢল নামবে না রাজপথে, বিনোদন কেন্দ্রে কিংবা অনুষ্ঠান মঞ্চে। পহেলা বৈশাখকে ঘিরে যে অর্থনীতির চাকা ঘোরে, এবার তা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় হাহাকার বিরাজ করছে সংশি¬ষ্ট ব্যক্তিদের মাঝে।

ব্রেকিং নিউজঃ