ঘাটাইলে জুয়ারু হেকমত হত্যাকান্ড ॥ আসামী ধরতে গড়িমশি পুলিশের

138

অভিজিৎ ঘোষ, ঘাটাইল থেকে ফিরে ॥
জুয়ারু হেকমত আলী হত্যাকান্ডের ঘটনার দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও মুল আসামীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। আসামীদের গ্রেফতার না করায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে হেকমত আলীর পরিবার। খুনের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করতে পুলিশ গড়িমশি করছে বলে অভিযোগ করেছে হেকমতের পরিবার।
গত (১১ অক্টোবর) টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার যুগীহাটি গ্রামের জুয়ারু হেকমত আলীকে দুষ্কৃতিরা হত্যা করে লাশ তার বাড়ির পাশের পুকুরে ফেলে রেখে যায়। এ ঘটনায় হেকমতের স্ত্রী রাজিয়া খাতুন বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে ঘাটাইল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।
মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার যুগীহাটি গ্রামের জুয়ারু হেকমত আলীকে গত (১০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় অজ্ঞাত কয়েকজন। গত (১১ অক্টোবর) ভোর রাত সাড়ে ৪টার দিকে হেকমত আলীর লাশ তার বাড়ির পুকুরে ভাসতে দেখে পরিবারের লোকজন। পরে পুকুর থেকে হেকমতের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওইদিন হেকমতের স্ত্রী রাজিয়া খাতুন অজ্ঞাতদের আসামী করে ঘাটাইল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যাকান্ডে জড়িত সন্দেহে যুগীহাটি গ্রামের আরেক জুয়ারু কামরুল ইসলামকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই আসামী হত্যার কথা স্বীকার করে কোর্টে ১৬৪ জবানবন্দি দেন। এছাড়াও চলতি মাসে যুগীহাতি গ্রামের হাবেল নামের আরেক জুয়ারুকে পুলিশ গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করে। হেকমতের পরিবারের অভিযোগ হাবেলকে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার করলেও সাধারণ মামলা দেখিয়ে কোর্টে চালান দেয় পুলিশ। চালানের কয়েকদিন পরই হাবেল জামিনে মুক্তি পান। এছাড়াও সন্দেহভাজন আসামীরা এলাকার আশপাশে ঘুরাফেরা করছে। পুলিশ তাদের গ্রেফতার করছে না। আসামীরা মামলা তুলে নিতে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এতে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।
হেকমতের স্ত্রী রাজিয়া খাতুন টিনিউজকে জানান, এলাকার নামধারী মাতব্বরাও আসামীদের পক্ষ নিয়েছে। বিভিন্ন সময় আমাদের মামলা তুলতে ভয় দেখায়। পুলিশকে বারবার অনুরোধ করা হলেও এলাকায় আসে না। আসামীরা তাদের পরিবারদের সাথে সব সময় যোগযোগ করছে।
এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ঘাটাইল থানার উপ-পরিদর্শক এসআই আবু হানিফ টিনিউজকে জানান, আসামীরা এলাকায় নেই। পর্যাপ্ত সোর্স নিয়োগ করা আছে আসামীদের ধরতে। আসামী ধরতে পুলিশের কোন গাফিলতি নেই। বাদী পক্ষের সাথে সব সময় যোগাযোগ করা হচ্ছে। তাদের অভিযোগ মিথ্যা।

ব্রেকিং নিউজঃ