ঘাটাইলে আইনশৃঙ্খলার সভায় পুলিশের মাদক অভিযানের নামে হয়রানীর অভিযোগ

91

ঘাটাইল সংবাদদাতা ॥
মাদক বিরোধী অভিযানের নামে সাধারণ মানুষের হয়রানীসহ, চাঁদাবাজী, ঘুষ, দুর্ণীতি কোনোভাবেই থামছে না ঘাটাইল থানা পুলিশের। আর এই পুলিশী অভিযানে সাধারণ জনগণসহ হয়রানীর স্বীকার হচ্ছে ব্যবসায়ীরাও। প্রায় তিনমাস আগে ঘাটাইল থানায় যোগদান করেন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহিউদ্দিন। তিনি যোগদান করে মাদক বিরোধী অভিযানে নামেন। কিছু দিন যেতে না যেতেই তার এই অভিযান প্রশ্নবিদ্ধ হয়। অভিযোগ রয়েছে, মাদক বিরোধী অভিযানকে পুঁজি করে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন ঘুষবানিজ্য, দূর্নীতি ও চাঁদাবাজিতে জড়িয়ে পড়ে। হয়রানীর স্বীকার হচ্ছে বহু নিরীহ মানুষ। এসব বিষয়ে গত সোমবার (১১ সেপ্টেম্বর) উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটি সভায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও কমিটি অন্যান্য সদস্যরা বক্তব্য রাখেন এবং ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
জানা যায়, গত (৬ সেপ্টেম্বর) সাব্বির হোসেন সাঈদ(২৮) স্থানীয় খেলার মাঠে ক্রিকেট খেলে সন্ধ্যায় বাড়ীর উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে এএসআই মতিউর রহমান তার সহযোগী কনস্টেবলসহ পথের মধ্যে আটক করে। আটকের পর তার সারা শরীরে তল্লাশী চালায়। শরীরে কোনো মাদকদ্রব্য না পেয়ে তাকে মাদক ব্যবসায়ি অভিযোগে তাকে থানায় নিয়ে আসে। এএসআই মতিউর রহমান সাব্বিরকে বলেন, তোর বাবাকে ফোন করে থানায় টাকা দিয়ে তোকে ছাড়িয়ে নেয়ার জন্য। সাব্বিরের ফোন পেয়ে তার বাবা থানায় ছুটে আসেন। এবং সাব্বিরের বাবা থানায় এএসআই মতিউরের সাথে দেখা করলে তার কাছ থেকে এক লাখ টাকা দাবী করে। দাবীকৃত টাকা না দিলে ছেলেকে ফেন্সিডিল, ইয়াবা সামনে দিয়ে পত্রিকায় মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে প্রকাশ করবেন বলে হুমকি দেয়া হয়।
এ বিষয়ে সাব্বিরের বাবা খোরশেদ আলম সাংবাদিকদের জানান, আমার ছেলের ফোন পেয়ে আমি থানায় ছুটে যাই। পরবর্তীতে এএসআই মতিয়ারের সাথে দেখা করি। মতিউর এক লাখ টাকা দিয়ে আমার ছেলেকে ছাড়িয়ে নেয়ার কথা বলেন। আমার ছেলের এবং আমার সম্মান বাচাঁতে আমি পঞ্চাশ হাজার টাকা দিতে রাজী হই। এএসআই মতিয়ার বলেন, এ টাকায় ওসি রাজী হবে না টাকা বাড়িয়ে দিতে হবে। পরবর্তীতে আমি আরো দশ হাজার টাকা বাড়িয়ে দিলে আমার ছেলেকে ছাড়িয়ে দেয়ার কথা স্বীকার করেন। ষাট হাজার টাকা দেয়ার পর মতিয়ার রহমান বলেন, আপনার ছেলেকে আামি বাড়িতে পাঠিয়ে দিবো। কিন্তু বাড়িতে পাঠিয়ে না দিয়ে তাকে ১৩৪ ধারায় মামলা দিয়ে জেলহাজতে প্রেরণ করে। এসব অভিযোগ তুলে ধরে গত সোমবার (১১ সেপ্টেম্বর) ঘাটাইল উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক শহিদুল ইসলাম লেবু।
এ বিষয়ে ঘাটাইল ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহিউদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, এ বিষয়ে আমার কোনো কিছু জানা নেই। লিখিত অভিযোগ দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ব্রেকিং নিউজঃ