গোখাদ্যের দাম বাড়ায় বিপাকে টাঙ্গাইলের খামারিরা

122

শেখ সোহান ॥
দফায় দফায় গোখাদ্যের দাম বাড়ায় দিশাহারা হয়ে পড়েছেন খামারিরা। তারা জানিয়েছেন, গোখাদ্যের দাম না কমলে বড় ধরনের লোকসানে পড়তে হবে। ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে টাঙ্গাইলে বিপুলসংখ্যক গরু, ছাগল ও মহিষ মোটাতাজা করছেন খামারিরা। কিন্তু ঈদ যতই এগিয়ে আসছে গোখাদ্যের দাম ততই বেড়ে চলেছে। এতে খামারিদের খরচ বাড়ছে।
খামারিরা টিনিউজকে জানান, গমের ভুসি ১ হাজার ২৮০ থেকে ১ হাজার ৪৮০ টাকা বস্তা, ভুট্টার গুঁড়া ১ হাজার ১০০ থেকে ১ হাজার ১৫০ টাকা বস্তা, যব ৩৮ টাকা কেজি, ধানের কুড়া ৫০০ থেকে ৫৬০ টাকা বস্তা, খৈল ২ হাজার ৭৫০ টাকা বস্তা এবং ঘাস প্রতি মুঠ ২০ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া কাউফিড প্রতি বস্তা ১ হাজার ৫০ টাকা। অ্যাংকর ডালের ভুসি ৮০০ টাকা দরে কিনতে হচ্ছে। ধানের খড় কিনতে হচ্ছে ৬০০ টাকা মণ দরে। এ অবস্থায় গোখাদ্যের দাম কমানো না হলে খামার রাখা অসম্ভব হয়ে উঠবে।
টাঙ্গাইল সদর উপজেলার খামারি শাহেদ ইসলাম টিনিউজকে জানান, এ বছর আমার খামারে ১৫টি ষাড় রয়েছে। ঈদ সামনে রেখে গরুগুলোকে মোটাতাজাকরণ করছি। তবে গরুর খাবারের দাম বেশি হওয়ার কারণে খরচ বেড়েছে। কোরবানির হাটে গরুর ভালো দাম পাব কি না তা নিয়ে চিন্তায় আছি।
টাঙ্গাইল জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ড. মোহাম্মদ রানা গোখাদ্যের দাম বৃদ্ধির কথা স্বীকার করে টিনিউজকে বলেন, সরকার চেষ্টা করছে এগুলো নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য। এরই মধ্যে জেলায় বিকাশের মাধ্যমে নগদ অর্থ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া খামারিদের মধ্যে দানাদার খাদ্য সরবরাহ করা হচ্ছে সরকারিভাবে। খামারিরা যাতে লোকসানে না পড়ে এজন্য গবাদিপশুর টিকাদানসহ সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে।

 

ব্রেকিং নিউজঃ