কালিহাতী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডিউটি ফাঁকি দিয়ে প্রাইভেট ক্লিনিকে রেজাউল!

293

সোহেল রানা, কালিহাতী ॥
ডিউটি ফাঁকি দিয়ে প্রাইভেট ক্লিনিকে দায়িত্ব পালনের অভিযোগ উঠেছে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ডেন্টাল) বিভাগে কর্মরত রেজাউল ইসলামের বিরুদ্ধে।
অভিযোগ রয়েছে, দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি দায়িত্বে অবহেলা করছেন। তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করার পরেই চলে যায় ঘাটাইলে তার ব্যক্তিগত ক্লিনিকে দায়িত্ব পালন করতে। তিনি ঘাটাইলের কমফোর্ট হসপিটাল ও রেলা ডেন্টাল কেয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। এতে স্থানীয়রা দাঁতের সমস্যা নিয়ে কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে কোন চিকিৎসাসেবা পান না। হাসপাতাল থেকে মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট রেজাউল ইসলামকে অপসারণের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র জানায়, সরকারি নিয়ম অনুযায়ি সকাল ৮ টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করার নিয়ম থাকলেও মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট রেজাউল ইসলাম তার কোন তোয়াক্কা করেন না। সে প্রতিদিন সকাল ৯ টা এসে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করেই তিনি ১০ টার দিকে ঘাটাইল চলে যান। এভাবেই তিনি মাসের পর মাস সরকারি দায়িত্ব ফাঁকি দিয়ে অধিক টাকার আশায় তার ঘাটাইলের ব্যক্তিগত ক্লিনিকে বসেন। এদিকে দায়িত্ব অবহেলার কারণে মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট রেজাউল ইসলামকে একাধিক শোকজ নোটিশও করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
কালিহাতীর বাসিন্দা আবু হানিফ টিনিউজকে বলেন, ইতিপূর্বেও দুইবার দাঁতের সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে গেলে মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট রেজাউলকে পাওয়া যায়নি। অধিক টাকা দিয়ে বাহিরের ডাক্তার দিয়ে সেবা নিতে হয়েছে আমাকে। সে শুধু সরকারি পদ দখল করে রয়েছেন। তার জায়গায় অন্য কেউ থাকলে আমরা ভাল মানের চিকিৎসাসেবা পাবো। তাকে অপসারণের জোর দাবি জানাচ্ছি। অপরজন গোপাল মিয়া টিনিউজকে বলেন, মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট রেজাউল ইসলামের কাছে দাঁতের সমস্যা নিয়ে গেলে তিনি তার ব্যক্তিগত ক্লিনিকে যাওয়ার ভিজিটিং কার্ড ধরিয়ে দেন। মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট রেজাউলের মতো ব্যক্তি হাসপাতালে থাকার চেয়ে না থাকাই অনেক ভাল।
এ বিষয়ে কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. উম্মে রুমান সিদ্দিকী টিনিউজকে বলেন, দায়িত্ব অবহেলার কারনে মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট রেজাউল ইসলামকে এর আগেও দুইবার শোকজ করা হয়েছে। তারপরও তিনি নিয়ম মেনে অফিসে থাকেন না। এ ব্যাপারে জেলা সিভিল সার্জনের সাথে কথা বলেছি, তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
এদিকে এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট রেজাউল ইসলাম টিনিউজকে বলেন, আমি নিয়ম মেনেই অফিস করি।

 

 

 

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ