কালিহাতী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-বিএনপির সর্মথকদের সংর্ঘষে আহত ৫

105

সোহেল রানা, কালিহাতী ॥
চর্তুথ ধাপে টাঙ্গাইলের কালিহাতী পৌরসভায় ভোট গ্রহন চলাকালে রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হরিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সর্মথকদের সংর্ঘষে যুবলীগ সম্পাদকসহ উভয়পক্ষের অন্তত ৫ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে গুরুতর আহত অবস্থায় দু’জনকে কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যরা স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
গুরুতর আহতরা হলো- কালিহাতী উপজেলার বীরবাসিন্দা ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন(৩৮) ও পৌরসভার চামুরিয়া গ্রামের বিএনপিকর্মী ইদ্রিস আলী(৪৫)।
কালিহাতী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আরিফুল ইসলাম আরিফ ও স্থানীয়রা টিনিউজকে জানান, বিএনপি প্রার্থীর নেতাকর্মীরা কেন্দ্রের বাহিরে অবস্থানরত আওয়ামী লীগ কর্মীদের সরে যেতে বললে উভয়পক্ষের মধ্যে প্রথমে তর্ক-বির্তক ও পরে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষেও মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংর্ঘষ হয়। উভয়পক্ষই বাঁশের লাঠি নিয়ে সংর্ঘষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ৪/৫ নেতাকর্মী আহত হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় যুবলীগ নেতা জামাল হোসেন ও বিএনপিকর্মী ইদ্রিস আলীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
কালিহাতী থানার অফিসার ইনর্চাজ সাওগাতুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে টিনিউজকে বলেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে তারা সহিংসতায় লিপ্ত হয়ে যায়। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যায়। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে।
হরিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার ও শহীদ সাহেদ হাজারি কলেজের অধ্যক্ষ আবু রায়হান টিনিউজকে জানান, ভোট কেন্দ্রের বাইরে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। ভোট কেন্দ্রের ২০০ গজের মধ্যে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
কালিহাতী পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন, ৩টি সংরক্ষিত ওর্য়াডে নারী কাউন্সিলর পদে ১০জন, ৯টি ওর্য়াডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এ পৌরসভার ১২টি কেন্দ্রের ৭৪টি বুথে মোট ২৮ হাজার ৬৫৫জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এরমধ্যে মহিলা ভোটার ১৪ হাজার ৬৩৯ জন এবং পুরুষ ১৪ হাজার ১৬ জন ভোটার।

ব্রেকিং নিউজঃ