কালিহাতীতে সড়ক উন্নয়নে নিম্নমানের ইট ব্যবহার ॥ ঠেকিয়ে দিলেন প্রকৌশলী

294

বিভাস কৃষ্ণ চৌধুরী ॥
টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার বীরবাসিন্দা ইউনিয়নের নোয়াবাড়ী মাদ্রাসা হতে জুব্বার আলীর বাড়ী পর্যন্ত রাস্তার ইট সলিং কাজে নিম্নমানের ইট ব্যবহারের অভিযোগে প্রেক্ষিতে নিম্নমানের ইট সরিয়ে নিতে বাধ্য করলেন উপজেলা প্রকৌশলী।
জানা যায়, বিগত ২০২০-২১ অর্থ বছরে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নে বীরবাসিন্দা ইউনিয়নের নোয়াবাড়ী মাদ্রাসা হতে জুব্বারের বাড়ী পর্যন্ত ইট ইসলিংটন এর জন্য আট লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। ওই প্রকল্প বাস্তবায়নে টাঙ্গাইলের আকুরটাকুর পাড়ার ব্রাদার্স ফার্নিচার মার্টস নামক একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ পাওয়ায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর ওই প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ প্রদান করে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান প্রকল্প এলাকায় নিম্নমানের ইট দিয়ে রাস্তার কাজ শুরু করলে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ এলাকাবাসী নিম্নমানের ইট ব্যবহারে ঠিকাদারকে বাধা দিলেও ঠিকাদার তাদের বাধা উপেক্ষা করে নিম্নমানের ইট দিয়েই রাস্তার কাজ শুরু করেন। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের একজন সাবেক সংসদ সদস্যের প্রভাব বিস্তার করে নিম্নমানের ইট ব্যবহার করেই কাজ করতে থাকায় বীরবাসিন্দা ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান জাহাঙ্গীর বিভিন্ন দপ্তরে ঠিকাদারের বিরোদ্ধে অভিযোগ জানায়।
এ বিষয়ে বীরবাসিন্দা ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব আলী টিনিউজকে বলেন, আমি শুনেছি নিম্নমানের ইট দিয়ে ঠিকাদার রাস্তার কাজ করছেন এবং আমার পরিষদের মেম্বার জাহাঙ্গীর নিম্নমানের ইট ব্যবহারে বাধা দিয়েছেন। আমি প্রকল্প সুপারভাইজার উপসহকারি প্রকৌশলী মিন্টুকে জানালে তিনিও স্বীকার করেছেন নিম্নমানের ইট দিয়ে কাজ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার শিবলু বলেন, আমি ১ নম্বর ইটই কিনেছি। ইট ভাটার মালিক কিছু ২ নম্বর ইট সরবরাহ করায় বিরুপ প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে।
কালিহাতী উপজেলা প্রকৌশলী জহির মেহেদী (৫ জুলাই) প্রকল্পটি পরিদর্শন করে নিম্নমানের ইট ব্যবহারের সত্যতা পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে প্রকল্পের কাজের জন্য আনা নিম্নমানের ইট সরিয়ে নেয়াসহ রাস্তায় ব্যবহৃত নিম্নমানের ইট অপসারণের নির্দেশ দিয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে নিম্নমানের ইট সরিয়ে নিতে বাধ্য করেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

 

ব্রেকিং নিউজঃ