কালিহাতীতে বিদ্যুতের দালালের মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

19

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার সিংনা গ্রামে বিদ্যুতের রিপেয়ারিং ও খুঁটি দেয়ার নামে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ওই গ্রামের কয়েকজন দালালের সহযোগিতায় ঠিকাদার ও বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড টাঙ্গাইলের কালিহাতী নির্বাহী প্রকৌশলী দপ্তরের কর্মকর্তাদের সিন্ডিকেটের মাধ্যমে এ টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ভুক্তভোগি বিদ্যুৎ গ্রাহকরা। টাকা নিয়েও বিদ্যুতের খুঁটি দেয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন গ্রাহকরা। তবে টাকা নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী। তবে এ বিষয়ে বক্তব্য দিতে রাজি হয়নি কালিহাতী বিদ্যুৎ অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী।
জানা যায়, টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার বীরবাসিন্দা সিংনা গ্রামের বিদ্যুতের ৩৮টি এলটি খুঁটি, ১৮টি এসটি খুঁটি ও তার রিপেয়ারিং বাবদ দরপত্র আহ্বান করেন কর্তৃপক্ষ। প্রায় সাড়ে চার লাখ টাকার বিনিময়ে নিউ বাদশা এন্টারপ্রাইজ নামে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কাজটি দেয় বিদ্যুৎ অফিস। ওই গ্রামে চার শতাধিক বিদ্যুৎ সংযোগ রয়েছে। মুখ চেনা প্রভাবশালী ব্যক্তি বাদ দিয়ে প্রতি মিটার থেকে স্থানীয় দালালের মাধ্যমে এক হাজার থেকে দশ হাজার টাকা নেয়া হয়েছে। এছাড়া একই এলাকার প্রবাসী জুব্বার ও লাল মিয়া ওরফে লালের কাছ থেকে খুঁটি বাবদ নেয়া হয়েছে ৩০ হাজার টাকা।
সরেজমিনে সিংনা গ্রামে গিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নেয়ার সত্যতা পাওয়া যায়। ওই গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা লোকমান হোসেন টিনিউজকে জানান, ওই এলাকার দালাল জাহাঙ্গীর, ফারুক, জাহিদ ও নাহিদ মিটার প্রতি আড়াই থেকে পাঁচ হাজার টাকা করে নিয়েছে। যে টাকা দেয়নি তাদের বাড়ি পর্যন্ত বিদ্যুতের খুঁটি লাগিয়ে দেয়নি। তার কাছে টাকা দাবি করলে তিনি টাকা দেননি। এদিকে টাকা নিলেও এখন পর্যন্ত বিদ্যুতের খুঁটি দেয়া হয়নি।
নিউ বাদশা এন্টারপ্রাইজ নামে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের রুহুল আমিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বিদ্যুতের খুঁটি লাগানোর কাজ চলছে। তবে কারও কাছ থেকে টাকা নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।
এদিকে এ বিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোন মন্তব্য করবেন না বলে জানান কালিহাতী বিদ্যুৎ অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন।

ব্রেকিং নিউজঃ