কালিহাতীতে প্রেমিকের সঙ্গে ঘুরতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত স্কুল ছাত্রী

400

সোহেল রানা, কালিহাতী ॥
টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে প্রেমিকের সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত হয়েছেন অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া নুসরাত জাহান তোয়া (১৩) নামের এক ছাত্রী। মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) উপজেলার ধলাটেঙ্গর এলাকায় এ দুর্ঘনাটি ঘটে। নিহত নুসরাত জাহান নাসির উদ্দিন ও শায়লা বেগম দম্পতির বড় মেয়ে। তারা এলেঙ্গা শামসুল হক কলেজের সামনে একটি ভাড়া বাসায় দীর্ঘদিন যাবত বসবাস করে আসছেন। তাদের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা টিনিউজকে জানান, স্কুল ড্রেস পড়া একটি মেয়ে ও একটি ছেলে রিক্সায় এসে ধলেটেঙ্গর এলাকায় রেললাইনে বসে থাকতে দেখা যায়। সকাল ৯ টা ১০ মিনিটের দিকে উত্তরবঙ্গগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে মেয়েটি ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ সময় ছেলেটি একটু নীচে থাকায় প্রাণে রক্ষা পান। পরে মেয়েটিকে রেখে ছেলেটি দ্রুত পালিয়ে যায়।
নুসরাতের মোবাইল চেক করে দেখে যায়, সোহাগ আল হাসান জয় নামের একটি ছেলের সাথে সকালে ফেসবুক ম্যাসেনঞ্জারে যোগাযোগ করে দেখা করার জন্য বের হন।
এলেঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাজমুল করিম টিনিউজকে জানান, নুসরাত জাহান তোয়া আমার স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। সকালে পুলিশ এবং সাংবাদিকদের মাধ্যমে খবর পাই সে ট্রেনে কাটা পড়ে মারা গেছে। আজকে তার গণিত পরীক্ষা ছিল।
নুসরাতের মা শায়লা বেগম কান্নাজড়িত কণ্ঠে টিনিউজকে জানান, সকালে বান্ধবীর বাসায় যাওয়ার কথা বলে একটু আগে আগেই বের হয় নুসরাত। এজন্য আমি আর আমার ছোট মেয়ে খানিকটা পথ এগিয়েও দিয়ে আসি। বান্ধবীর বাসায় থেকে এলেঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষা দিতে যাওয়ার কথা। কিন্তু ও রেললাইনে কিভাবে গেল বুজতে পারছি না।
ঘারিন্দা রেলওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই আব্দুস সবুর টিনিউজকে জানান, সকাল ৯টা ১০ মিনিটে নীল সাগর এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে নুসরাত জাহান তোয়া নামে এক ছাত্রী ঘটনাস্থলেই মারা যান। খবর পেয়ে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।
বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব রেল স্টেশন মাস্টার (ইনচার্জ) মাছুম আলী খান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে টিনিউজকে জানান, ট্রেনে কাটা পড়ে স্কুল ছাত্রী নিহতের বিষয়টি রেল পুলিশকে জানানো হয়েছে। তারা এসে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

 

 

 

 

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ