ঈদে টাঙ্গাইলে আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১১ জন ॥ আহত ১৫ জন

117

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী, মির্জাপুর, কালিহাতী, সদর ও ঘাটাইলে আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় ১১ জন নিহত হয়েছে। আর এ ঘটনায় আহত হয়েছে অন্তত ১৫ জন। ঈদের ছুটির মধ্যে সড়ক ও মহাসড়কে এসব দুর্ঘটনা ঘটেছে।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (এএসআই) মোহাম্মদ নবীন টিনিউজকে জানান, টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে সদর উপজেলার রাবনা বাইপাস এলাকায় মঙ্গলবার (১২ জুলাই) দুপুরে সড়ক দুর্ঘটনা খালা ও ভাগ্নি নিহত হয়েছে। নিহতরা হলেন- নাটোর জেলার নলডাঙ্গা থানার কাঠুয়াজানি গ্রামের কুদ্দুস মিয়ার মেয়ে মৌসুমী (৩৫) ও তার ভাগ্নি জামালপুর জেলার টেংকি মারি গ্রামের জাউলের মেয়ে রিয়া মনি (৫)। জামালপুর থেকে সিএনজি যোগে মৌসুমীরা ঢাকার দিকে যাচ্ছিলো। অপরদিকে উত্তরবঙ্গগামী এসআই পরিবহনের বাসটি ঘটনাস্থলে ওই সিএনজিকে ধাক্কা মারে। এতে ঘটনাস্থলেই রিয়া নামে ৫ বছরের শিশু নিহত হয়। মৌসুমীকে হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এই দুর্ঘটনায় সিএনজির আরও ২ জন আহত রয়েছে। আহতরা টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

গোড়াই হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির (এসআই) বিল্লাল হোসেন টিনিউজকে জানান, মির্জাপুরে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী দুইজন নিহত হয়েছেন। গত শুক্রবার (৮ জুলাই) সকাল ৮টার দিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের উপজেলার জামুর্কী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মৃতরা হলেন- নাটোর জেলার বাসিন্দা হাফিজুর রহমান (৩৬) ও আরিফুল (৩৫)। তারা দুইজন ঈদ করতে মোটরসাইকেল নিয়ে ঢাকা থেকে নাটোরে যাচ্ছিলেন। জামুর্কী এলাকায় পৌঁছালে একটি ট্রাক তাদের মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয়। এ সময় একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। অপরজন কুমুদিনী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়। আইনী প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চান মিয়া টিনিউজকে জানান, টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে একটি যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় অটোরিকশার চালকসহ চারজন নিহত হয়েছেন। গত শুক্রবার (৮ জুলাই) রাত পৌনে ১২ টার দিকে টাঙ্গাইল-জামালপুর মহাসড়কের বানিয়াজান বাসষ্ট্যান্ডের সামনের এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- জামালপুর জেলা সদরের তুলসীপুর গ্রামের প্রাণকৃষ্ণ কর্মকারের ছেলে অটোরিকশা চালক বাবুল কর্মকার (৫০), রামনগর গ্রামের শহিদ মিয়ার ছেলে সাইফুল ইসলাম (২২), তাঁর ছোট ভাই মৃদুল হাসান (১৫) ও একই গ্রামের বজলুল মিয়ার ছেলে হাসান মিয়া (১৯)। শুক্রবার (৮ জুলাই) রাতে শেরপুর থেকে ছেড়ে আসা এস.কে জননী পরিবহন যাত্রীবিহীন বাসটি ঢাকার দিকে যাচ্ছিল। অপরদিকে ধনবাড়ী বাসষ্ট্যান্ড থেকে এক অটোরিকশা তিনজন যাত্রী নিয়ে জামালপুর সদর উপজেলায় যাচ্ছিল। রাস্তা ফাঁকা পেয়ে বাসের বেপরোয়া গতিতে অটোরিকশার সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে ঘটনাস্থলেই অটোরিকশার চালক বাবুল কর্মকার (২৮) ও সাইফুল ইসলাম (৩২) নিহত হয়। গুরুতর অবস্থায় মৃদল (২৬) ও হাসানকে (২২) ধনবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

ভূঞাপুর ফায়ার সার্ভিসের লিডার স্বপন আলী টিনিউজকে জানান, টাঙ্গাইলের কালিহাতীর সিঙ্গুরিয়া এলাকায় ট্রাক-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে ১জন নিহত ও ২জন আহত হয়েছে। অপরদিকে ঢাকা-টাঙ্গাইল ও বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের কালিহাতীর চরভাবলা এলাকায় বাস চাপায় একজন নিহত হয়েছে। গত শনিবার (৯ জুলাই) দুপুরে এ দুর্ঘটনাটি দুইটি ঘটেছে। জানা যায়, কালিহাতীর এলেঙ্গা থেকে ছেড়ে আসা যাত্রী ভর্তি একটি সিএনজি ভূঞাপুরের দিকে যাচ্ছিলো। অপরদিকে ভূঞাপুর থেকে ছেড়ে আসা একটি ট্রাক এলেঙ্গার দিকে যাচ্ছিলো। এ সময় কালিহাতী উপজেলার সিঙ্গুরিয়া এলাকায় পৌছালে ট্রাক-সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে একজন নারী নিহত হয়। এ সময় আহত হয় আরও ২জন। পরে আহতদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠায় ফায়ার সার্ভিস। নিহত ওই নারী টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার ভেড়াডাকরী এলাকার ঠান্ডু মিয়ার মেয়ে লিমা আক্তার (২৫)। তিনি ঢাকার একটি গার্মেন্টসে কাজ করতেন।

বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার (এসআই) নাজমুল ইসলাম টিনিউজকে জানান, ঢাকা-টাঙ্গাইল ও বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের কালিহাতীর চরভাবলা এলাকায় যানজটে আটকে পড়ায় ছেলের জন্য পানি নিয়ে ফেরার পথে বাস চাপায় একজন নিহত হয়েছে। নিহত ওই ব্যক্তির নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি।

ঘাটাইল থানার উপ-পরিদর্শক পলাশ আহমেদ টিনিউজকে জানান, টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায় বিদ্যুতের খুঁটির সঙ্গে যাত্রীবাহী পিকআপের ধাক্কায় একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১১ জন। পিকআপটি ধাক্কা খেয়ে উল্টে যায়। সোমবার (১১ জুলাই) সকাল ৭টায় টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পোড়াবাড়ি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। যাত্রীবাহী একটি পিকআপ গাজীপুর থেকে টাঙ্গাইলের মধুপুর যাচ্ছিল। টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ঘাটাইল উপজেলার পোড়াবাড়িতে পৌঁছলে সড়কের পাশের একটি বিদ্যুতের খুঁটির সাথে ধাক্কা খেয়ে খাদে পড়ে দুমড়ে মুচড়ে যায়। এ ঘটনায় পিকআপচালকসহ আহত হন কমপক্ষে ১২ জন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে নিয়ে যান। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক সৌরভ (১২) নামে এক কিশোরকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। সে মধুপুর উপজেলার ভবানীটেকি গ্রামের শফিকুলের ছেলে।

ব্রেকিং নিউজঃ