Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

ড. আব্দুর রাজ্জাক কৃষি মন্ত্রী হচ্ছেন

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার/ আব্দুল্লাহ আবু এহসান, ধনবাড়ী ॥
আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের মন্ত্রী পরিষদে এবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী, টানা ৪ বারের নির্বচিত সংসদ সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি এবার কৃষি মন্ত্রী হচ্ছেন। রোববার (৬ জানুয়ারি) দুপুরে তিনি মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ থেকে কৃষি মন্ত্রীর জন্য ফোন পেয়েছেন। এ খবরে টাঙ্গাইলের সর্বস্তরে আনন্দ-উল্লাস ছড়িয়ে পড়েছে।
ড. আব্দুর রাজ্জাক এবার নৌকা প্রতীকে প্রায় পৌনে ২ লাখ ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন। অপরদিকে বিএনপি প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে জামানত হারিয়েছেন। টানা চতুর্থ বার বিপুল ভোটে জয়লাভ করায় তার নির্বাচনী এলাকা মধুপুর ও ধনবাড়ীর সাধারণ মানুষ আবারো মন্ত্রী করায় ধন্যবাদ জানিয়েছেন।
জানা যায়, টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলার মুশুদ্দি গ্রামে জন্ম নেয়া প্রখ্যাত কৃষি বিজ্ঞানী ড. আব্দুর রাজ্জাক সরকারী চাকুরীতে যোগ দিয়ে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসাবে অবসর গ্রহণ করেন। বিগত ২০০১ সালে অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে প্রথম এমপি নির্বাচিন হন। এরপর রাজনীতির মাঠে আর তাকে পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। দুঃসময়ের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা বর্তমান জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ইস্তেহার প্রণয়ন কমিটির আহবায়ক ড. আব্দুর রাজ্জাক তার রাজনৈতিক দুরদর্শিতা দিয়ে আওয়ামী লীগকে মধুপুর ও ধনবাড়ী তথা টাঙ্গাইল জেলায় শক্তিশালী ও সুদৃঢ় ভিত্তির উপর দাঁড় করিয়ে শক্ত ঘাঁটিতে পরিণত করেছেন। বঙ্গবন্ধুর অবিনাশী আদর্শের সৎ, কর্মঠ ও জনপ্রিয় এ নেতার দুরদর্শিতায় টাঙ্গাইলের সকল জনপ্রতিনিধি এখন আওয়ামী লীগে। তৃণমূল নেতাকর্মিদের সুঃখ-দুঃখের ভাগিদার ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি কালক্রমে সব পর্যায়ের নেতাকর্মিদের আস্তা ও ভরসার প্রতীক এবং শেষ ঠিকানায় পরিণত হয়েছেন। শুধু স্থানীয় রাজনীতিতে নয় জাতীয় রাজনীতিতেও তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে শেখ হাসিনার বিশ্বস্থতা অর্জন করেছেন।
আর এ কারণেই তাকে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবারের আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইস্তেহার প্রণয়ন কমিটির আহবায়কের দায়িত্ব অর্পণ করেছিলেন। এছাড়া তিনি সততা, নিষ্ঠা ও সফলতার সাথে বিগত দিনে খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব ও বর্তমানে অর্থ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি মধুপুর ও ধনবাড়ী গ্রাম থেকে উপজেলা শহর পর্যন্ত রাস্তা-ঘাট, স্কুল-কলেজ, হাসপাতালসহ অবকাঠামোখাতে ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। মধুপুর-ধনবাড়ী তথা টাঙ্গাইলের মানুষ তাকে উন্নয়নের রূপকার হিসাবে আখ্যায়িত করেন। দশম সংসদ নির্বাচনের পর তাকে মন্ত্রীত্ব না দিলেও তিনি আগের মতই উন্নয়ন কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছেন। তিনি গ্রামে-গ্রামে বিদ্যুৎসহ মধুপুর-ধনবাড়ীতে শতভাগ বিদ্যুতের ব্যবস্থা করেছেন। উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে এলাকাবাসী আবারো তাকে মন্ত্রী সভায় দেখতে পারবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।
এ ব্যাপারে ধনবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র খন্দকার মঞ্জুরুল ইসলাম তপন ও দপ্তর সম্পাদক ইকবাল হোসেন তালুকদার টিনিউজকে বলেন, মন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালনের জন্য সততা, নিষ্ঠা, যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা সব কিছুই ড. আব্দুর রাজ্জাকের রয়েছে। সরকার তাকে কৃষি মন্ত্রী করায় এলাকাবাসী অনেক কৃতজ্ঞ।
মধুপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শরিফ আহমেদ নাছির, সাবেক শিক্ষক শমসের আলী মাষ্টার, ধনবাড়ী উপজেলা মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার সভাপতি আব্দুল্লাহ আবু এহসান খোকন টিনিউজকে বলেন, তিনি মধুপুর-ধনবাড়ীতেই নয়, সারাদেশেই উন্নয়নের ব্যাপক অবদান রেখেছেন। কাজেই জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে মধুপুর ও ধনবাড়ীবাসী কৃতজ্ঞ। সততা, নিষ্ঠা, উন্নয়ন, অগ্রগতি, শিক্ষা, অর্থনীতি, আইন প্রণয়ন সবক্ষেত্রেই ড. রাজ্জাকের জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা রয়েছে। কাজেই নতুন মন্ত্রী সভায় তার মতো সৎ ও নিষ্ঠাবান রাজনীতিবিদকে অন্তর্ভুক্ত করেছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। ড. আব্দুর রাজ্জাক রাজনীতিবিদ হিসাবে স্বচ্ছ ও পরিছন্ন। তিনি একাধারে একজন কৃষিবিদ, কৃষি বিজ্ঞানী, মুক্তিযোদ্ধা ও শিক্ষক। বর্তমান মন্ত্রী সভায় দ্বিতীয়বারের মতো বর্ষিয়ান এ রাজনীতিবিদ এর ঠাঁই হওয়ায় দেশের মানুষ উপকৃত হবে। স্থানীয় নেতাকর্মি ও সমর্থকসহ গোটা টাঙ্গাইলবাসী মনে করেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবার মন্ত্রী পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ কৃষি মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব দেয়ায় ড. আব্দুর রাজ্জাককে যথার্থ মূল্যায়ন করেছেন।
এ ব্যাপারে নতুন কৃষি মন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি টিনিউজকে বলেন, মন্ত্রী পরিষদে কৃষি মন্ত্রীর দায়িত্ব দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনা অবশ্যই সততা, নিষ্ঠা ও কাজের মূল্যায়ন করেছেন। আমি আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালনের চেষ্টা করবো।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ