Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

পিউ ম্রং কে সংরক্ষিত আসনে মনোনয়নের দাবি মধুপুরের নৃ-গোষ্ঠিদের

শেয়ার করুন

হাবিবুর রহমান, মধুপুর ॥
পিউ ফিলোমিনা ম্রং কে সংরক্ষিত আসনের মনোনয়নের দাবি জানিয়েছেন টাঙ্গাইলের মধুপুর গড়াঞ্চলের সমতল এলাকার বসবাসকারি নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠি গারো ও কোচ সম্প্রদায়ের লোকেরা। নৃ-গোষ্ঠিদের দাবি গারো সম্প্রদায়ের লোকেরা অবহেলিত ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠি। তাদের কথা বলার মতো নিজস্ব কোন নারী প্রতিনিধি জাতীয় সংসদে না থাকায় তারা বরাবরই অবহেলিত। তাদের প্রতিনিধিত্ব করার জন্য মধুপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও মধুপুর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পিউ ফিলোমিনা ম্রং কে এবার জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনে মনোনয়নের দাবি জানিয়েছেন মধুপুর অঞ্চলের গারো ও কোচ সম্প্রদায়।
জানা যায়, পিউ ফিলোমিনা ম্রং ১৯৯৬ সাল থেকে মধুপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে এবং মধুপুর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি এর আগে আরো পরপর ৩ বার সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন ফরম তুলেছিলেন। তিনি বার বার মনোনয়ন ফরম তুলচ্ছেন। তিনি এমএসসি পাশ করে বর্তমানে মধুপুর জলছত্র কর্পোস খ্রীষ্টি উচ্চ বিদ্যালয়ে সিনিয়র বিএসসি শিক্ষক হিসেবে শিক্ষকতা করছেন। আওয়ামী লীগের রাজপথের মিছিল মিটিংয়ে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে থাকেন। দলের বিভিন্ন কর্মকান্ডে তিনি অত্যন্ত নির্ভিক, সাহসী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে শুরু করে জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত প্রতিটি দলীয় নির্বাচনে তিনি রাতদিন দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে নিরলস কাজ করে থাকেন। গড় এলাকার নারীদের সংগঠিত করতে তিনি গ্রামে গ্রামে গিয়ে তাদেরকে সংগঠিত করেন। নারীদের নিয়ে সভা সমাবেশ, মিছিল মিটিং ও ধর্মীয় প্রার্থনাসহ নানা বিষয়ে নারীদের নিয়ে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছেন। লাল মাটি এ অঞ্চলের গারো ও কোচ সম্প্রদায়ের লোকেরা বরাবরই নৌকায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করতে সহযোগীতা করেন।
মধুপুরে এই আসনে নৃ-গোষ্ঠিদের ২০-২৫ হাজার ভোট আওয়ামী লীগের রিজার্ভ হিসেবে গণনা করা হয়ে থাকে। এ ব্যাপারে নৃ-গোষ্ঠি নারীদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন আচিক মিচিক সোসাইটি নির্বাহী পরিচালক সুলেখা ম্রং টিনিউজকে বলেন, আমাদের নৃ-গোষ্ঠি নারীদের উন্নয়নের জন্য মধুপুর লাল মাটির গারো সম্প্রদায়ের পিউ ফিলোমিনা ম্রং কে সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানাই। মধুপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আদিবাসী নেত্রী যষ্ঠিনা নকরেক টিনিউজকে বলেন, আমাদের নৃ-গোষ্ঠি গারো সম্প্রদায়ের লোকেরা ২০-২৫ হাজার ভোট নৌকায় দিয়ে থাকে। যে কারণে বার বার মধুপুরে নৌকা জয়লাভ করে। জাতীয় সংসদে আমাদের নারী গোষ্ঠির লোকদের প্রতিনিধিত্ব করার মতো কোন প্রতিনিধি নেই। এবার সংরক্ষিত আসনে নৃ-গোষ্ঠির পক্ষ থেকে মধুপুরে মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানাই।
বৃহত্তর ময়মনসিংহ আদিবাসী কালচারাল ডেভলপমেন্ট এর সভাপতি মি. অজয় এ মৃ টিনিউজকে বলেন, নৃ-গোষ্ঠির নারীরা এমনিতেই পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠি। জাতীয় সংসদে আমাদের নৃ-গোষ্ঠি নারীদের নিজস্ব প্রতিনিধি নেই। আমাদের একজন নারী প্রতিনিধি প্রয়োজন। জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি ইউজিন নকরেক টিনিউজকে জানান, আমদের পিছিয়ে পড়া সংখ্যালঘু নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠি নারীদের প্রতিনিধিত্ব করার জন্য জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন দেয়ার দাবি জানাই। সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন পেলে এই পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠি নারীদের এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ হবে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ