ঘাটাইলে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ বন্ধ

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার, ঘাটাইল ॥
টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেয়েছে এক স্কুলছাত্রী। বুধবার (১ এপ্রিল) রাতে উপজেলার দিগর ইউনিয়নের ধোপাজানি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, বুধবার (১ এপ্রিল) রাতে ঘাটাইলের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানতে পারেন যে, দিগড় ইউনিয়নের ধোপাজানি গ্রামের জনৈক এক ব্যক্তির তার নাবালিকা মেয়েকে বিয়ে দিচ্ছেন। মেয়েটি স্থানীয় একটি বিদ্যালয় থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। টাঙ্গাইল সদর উপজেলার টিলাবাড়ি গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সুমন মিয়া (১৮) সাথে বিয়ের আয়োজন করে মেয়েটির। করোনা ভাইরাসের কারণে জনসমাগম করে সামাজিক অনুষ্ঠান না করার বিধি নিষেধ থাকলেও তা না মেনেই উক্ত বিয়ের আয়োজন করা হয়।
এদিকে বুধবার (১ এপ্রিল) রাতেই বর পক্ষ লোকজন বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন। বিষয়টি স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছেও অবহিত করেন এলাকাবাসী। এ অবস্থায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অঞ্জন কুমার সরকার রাতেই দিগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ মামুনকে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। বিষয়টি টের পেয়ে বর পক্ষের লোকজন সরে পড়েন। এ সময় মেয়ের বাবা-মাকেও বাড়িতে পাওয়া যায়নি। পরে মেয়েটি সাবালিকা না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে বিয়ে দিবে না মর্মে মেয়ের আত্বীয়স্বজন ও স্থানীয় ইউপি সদস্যের কাছ থেকে মুচেলেকা নিয়ে বাল্যবিবাহ বন্ধ করে দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ