সখীপুর উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যিনি ফার্মাসিস্ট তিনিই ঝাড়ুদার

শেয়ার করুন

মোস্তফা কামাল, সখীপুর ॥
টাঙ্গাইলের সখীপুর পৌর শহরে অবস্থিত উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি চলছে মাত্র একজন ফার্মাসিস্ট দিয়ে। ফলে এ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসা রোগীদের চিকিৎসা সেবা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। মাঝে-মধ্যে ওই ফার্মাসিস্টকে ঝাড়ুদারের কাজও করতে হয়। ওই কেন্দ্রে চিকিৎসক, মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট ও মিডওয়াইফ থাকার কথা থাকলেও তাঁরা প্রেশনে অন্যত্র কাজ করছেন। রোগীদের ব্যবস্থাপত্র দেয়ার নিয়ম না থাকলেও সাইফুল আলম নামের ওই ফার্মাসিস্ট প্রতিদিন অসংখ্য রোগীকে ব্যবস্থাপত্র দিচ্ছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, চিকিসৎক আব্দুল্লাহ আল রতন উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যোগদানের পর থেকেই টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে প্রেশনে চলে যান। মেডিকেল এসিস্টেন্ট গুলশান নাহার কনা প্রেশনে বাসাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছেন। মিডওয়াইফ নার্স অঞ্জনা বালা মন্ডল স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেশনে আছেন। প্রতিদিন এই উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ৫০-৭০ জন রোগী আসেন চিকিৎসা নিতে। এমএলএসএস মুন্নি বেগমকে নিয়ে রোগীদের সেবা দিতে হিমশিম খেতে হয় ফার্মাসিস্ট সাইফুল আলমকে।
ফার্মাসিস্ট সাইফুল আলম টিনিউজকে বলেন, প্রতিদিন এতো রোগী আসে যে আমার একার পক্ষে সেবা দেয়া কঠিন হয়ে পড়ে। বিশেষ প্রয়োজন হলেও ছুটি নিতে পারিনা। এমএলএসএস ছুটি নিলে অফিস ঝাড়ু দেয়ার কাজও আমাকেই করতে হয়।
এ ব্যাপারে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বেলায়েত হোসাইন টিনিউজকে বলেন, অন্যরা প্রেশনে থাকায় উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রটিতে সঠিক সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগতি করানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ