Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

সংসদে চুলচেরা সংশোধন ও আধুনিক নিরাপদ সড়ক আইন পাস করা হবে- ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি

শেয়ার করুন

মধুপুর সংবাদদাতা ॥
আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, অর্থ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক খাদ্রমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি বলেছেন, সম্প্রতি ছোট শিক্ষার্থী ও তরুনরা সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলেছিল। তাদের এই আন্দোলন সকলের বিবেককে জাগ্রত করে। কোমলমতি শিক্ষার্থীরা যেভাবে চেয়েছে ঠিক সেই ভাবেই প্রধানমন্ত্রী সব দাবি মেনে নিয়ে আইন তৈরি করেছেন। এখন তা সংসদে উপস্থাপন করা হবে। এই আইনে যদি কোন ভূলত্রুটি থেকেও থাকে তা সংসদে চুলচেরা বিশ্লেষন করে তা সংশোধন, যুগোপযোগী ও আধুনিক করে নিরাপদ সড়ক আইন পাস করা হবে। যে আইন করা হয়েছে তা খুবই শক্তিশালী। কিন্তু দেশের কিছু রাজনৈতিক ও সুশীল সমাজের কিছু নামধারীরা তাদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এই আন্দোলনকে কালিমা লেপন করতে চেয়েছিল। তারা এখন আইনকে নিয়ে বিভ্রান্তকর মন্তব্য করছে।
তিনি বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) দুপুরে বিশ্ব আদিবাসী দিবস উপলক্ষে টাঙ্গাইলের মধুপুরে জলছত্র কর্পোষ্ট খ্রীষ্টি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আদিবাসী ক্ষুদ্র নৃ-জনগোষ্ঠীর সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
তিনি বলেন, আদিবাসী ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। তাদের সকল সমস্যা পর্যায়ক্রমে সমাধানে সরকার আন্তরিক রয়েছে। ক্ষুদ্র জাতিসত্তার জনগোষ্ঠীকে বন নির্ভর উন্নয়ন কর্মকান্ডে সর্ম্পৃক্ত করে বিশেষ কায়দায় পুনর্বাসন করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আর এজন্য আবারও নৌকায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। তিনি আরও বলেন, অসত্য নানা ইস্যুতে বিএনপি তাদের সব ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে সংবিধান অনুযায়ী যথাসময়ে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই নির্বাচনে জনগনের ম্যান্ডেট নিয়ে আওয়ামী লীগ আবারও সরকার গঠন করবে। তিনি বলেন, মধুপুরে শিক্ষা-স্বাস্থ্য ও যোগাযোগসহ সকল ক্ষেত্রে অভুতপূর্ব উন্নয়ন সাধন করা হয়েছে।
জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি ইউজিন নকরেকের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মধুপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রমেন্দ্রনাথ বিশ্বাস, মধুপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবু, ভাইস চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বাপ্পু সিদ্দিকী, ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট ইয়াকুব আলী, জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদের সাবেক সভাপতি অজয় এ মৃ, এলআরডির নির্বাহী পরিচালক রওশন জাহান মনি, রবি হিউবার্ট গমেজ, সুলেখা ¤্রং. শ্যামল মানকিন, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম প্রমুখ।
অনুষ্ঠান শেষে আদিবাসীদের পক্ষে বিশেষ ভুমিকা রাখার জন্য তিনজন আদিবাসীকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। সংবর্ধিত আদিবাসী হলেন- বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী প্রতিভা সাংমা, শিক্ষানুরাগী ও নারী অধিকার কর্মী মিসেস মারিয়া চিরান ও আদিবাসী লেখক ও গবেষক সুভাষ জেংছাম।
আলোচনা সভা শেষে আদিবাসীদের নৃত্য ও গান পরিবেশিত হয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ