শিক্ষার্থীদের পড়াতে শিক্ষকদেরও বেশি বেশি পড়তে হবে …কৃষিমন্ত্রী

শেয়ার করুন

 কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, শিক্ষা তখনই প্রকৃত শিক্ষা হয়ে ওঠে যখন তা মানব উন্নয়নে ভূমিকা রাখে এবং যুগোপযোগী হয়ে ওঠে।  সমৃদ্ধ ও উন্নত আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মাণে শিক্ষার মানোন্নয়ন ও আধুনিকায়ন একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। রূপকল্প ২০২১ বা জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য জনসম্পদ উন্নয়নের কোনো বিকল্প নেই। টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে এখন মানসম্মত শিক্ষাকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।শিক্ষক হচ্ছেন সমাজের আলোকিত মানুষ,সমাজের সম্মানিত মানুষ। শিক্ষার্থীদের মধ্যে তাদের আলো ছড়িয়ে দেয়ার আহবান জানান মন্ত্রী। তাদের দেশ প্রেমিক মানবিক মুল্যবোধ সম্পন্ন ন্যায়পরায়নতা যেন তাদের মধ্যে থাকে এই শিক্ষা দিতে হবে। এবং শিক্ষার মান বাড়াতে সবাইকে কঠোর হতে হবে। শিক্ষার্থীদের পড়াতে শিক্ষকদেরও বেশি বেশি পড়তে হবে।

শুক্রবার (১৪ ফেব্রুয়ারী)  টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলা শিক্ষক সমিতির ত্রি-বার্ষিক  সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

মানসম্মত শিক্ষার ব্যপারে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করছে। উন্নত সমৃদ্ধশালী দেশ গড়তে হলে  গুণগত মানসম্মত ও যুগোপযোগী  শিক্ষার জরুরী। তবেই আমাদের শিক্ষার্থীরা বিশ্বের দরবারে নিজের যোগ্যতা ও দক্ষতা প্রয়োগ করতে সক্ষম হবে। পরিমাণ নয় মানই গুরুত্বপূর্ণ। জিপিএ আসল কথা নয়, শিক্ষার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে কোন ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণই আসল কথা। কারণ আজকের শিক্ষার্থীরাই ভবিষ্যতে উন্নত বাংলাদেশের হাল ধরবে। সেই ভবিষ্যত বিনির্মাণ গভীর সুবিবেচনাপ্রসূত হওয়াই কাক্ষিত বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী বলেন, গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন রাজনীতির ভাষা ছেড়ে পথ হারিয়ে নিম্মস্তরের মানুষের মত কথা বলছেন। তার বক্তব্যে শুধু রাজনীতিবিদ নন, সারাদেশের মানুষ লজ্জিত। লাথি মেরে সরকারকে ক্ষমতা থেকে নামানো এটা রাজনীতিবিদের ভাষা নয়, রাস্তার মানুষের ভাষা। আওয়ামী লীগ জনগণের দল,মুক্তি যুদ্ধের পক্ষের দল এই দলকে ক্ষমতা হতে নামানোর ক্ষমতা করোই নাই। জনগণ সিদ্ধান্ত নিবেন ক্ষমতায় কাকে বসাবেন কাকে নামাবেন।

কৃষিমন্ত্রী আরও বলেন, মানব তখনই মানবসম্পদ হয়ে ওঠে যখন সে দেশ ও সমাজের ইতিবাচক কাজে আত্মনিয়োগে যোগ্যতা এবং সামর্থ্য অর্জন করে। দক্ষ মানবসম্পদ ছাড়া কল-কারখানা কিংবা অর্থনীতির চাকা সচল রাখার যে কোন কর্মযজ্ঞ সক্রিয় ও সফল হতে পারে না। সে কারণেই দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির কথাটি গুরুত্বের সঙ্গে বারবার উচ্চারিত হয়ে থাকে।  সুদক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। শিক্ষার প্রসারের সঙ্গে এখন গুণগত মানকেও গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। বাস্তবিকভাবেই গুণগত ও মানসম্মত শিক্ষা এখন অপরিহার্য হয়ে উঠেছে। জাতীয় উন্নয়ন, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জন ও গতিশীল সমাজ গঠনে গুণগত শিক্ষা চালকের ভূমিকা নিতে পারে। এভাবেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা পাবে।

মধুপুর উপজেলার শিক্ষক সমিতি’র সভাপতি অ্যাড: মো: ইয়াকুব আলী’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো: ছরোয়ার আলম খান আবু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফা জহুরা , জেলা শিক্ষা অফিসার লায়লা খানম প্রমূখ।

মধুপুর উপজেলা মিলনায়তনে অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন সভাপতি শামীম আল মামুন।

প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি টাঙ্গাইল জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মীর মনিরুজ্জামান।

সম্মেলনে মধুপুর উপজেলা শিক্ষক সমিতির সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ