রণদা প্রসাদ হত্যা মামলায় মাহবুবের বিরুদ্ধে বিচার শুরুর আদেশ

শেয়ার করুন

আদালত সংবাদদাতা ॥
একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় টাঙ্গাইলের দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা হত্যা মামলায় অভিযুক্ত মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে হত্যা, অপহরণ ও গণহত্যার মতো তিনটি অপরাধের অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ প্রদান করেছে ট্রাইব্যুনাল। একই সঙ্গে, মামলায় সাক্ষীর জবানবন্দী গ্রহণ করার জন্য আগামী (২২ এপ্রিল) দিন ঠিক করেছেন আদালত। ওইদিন মামলায় ওপেনিং স্টেটমেন্ট (সূচনা বক্তব্য) উপস্থাপন করার নির্দেশ দিয়েছেন ট্রাব্যুনাল।
চেয়ারম্যান বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্য বিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ বুধবার (২৮ মার্চ) এ আদেশ প্রদান করেছেন। এ সময় প্রসিকিউশন পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ, ব্যারিস্টার তাপস কান্তি বল, প্রসিকিউটর রেজিয়া সুলতানা বেগম চমন। অন্যদিকে আসামি পক্ষে ছিলেন এ্যাডভোকেট আব্দুস সাত্তার পালোয়ান। টাঙ্গাইলের দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা হত্যা মামলায় বিচার শুরুর আদেশ প্রদান করেছে ট্রাইব্যুনাল।
গত বছরের (৯ জুন) মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ট্রাইব্যুনালের অধীনে আসামি মাহবুবুর রহমানকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। বর্তমানে তিনি কারাগারেই আছেন। তার গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বইরাতিয়া পাড়ায়। তদন্ত সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, ১৯৭১ সালের ৭ মে আসামি মাহবুবুরের সহায়তায় পাকিস্তানী বাহিনীর সদস্যরা দানবীর রণদা প্রসাদ ও তার ছেলেকে নারায়ণগঞ্জের খানপুরের সিরাজউদ্দৌলা সড়কের বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। পরে তাদের আর কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। আসামি মাহবুবুরের বিরুদ্ধে সাহাপাড়া এলাকায় ৩৩ হিন্দুকে ধরে নিয়ে হত্যা ও মির্জাপুর থেকে ২৪ জনকে অপহরণের পর তাদের মধ্যে ২২ জনকে মধুপুরে নিয়ে হত্যার অভিযোগসহ অগ্নিসংযোগ, নির্যাতন ও গণহত্যার তিনটি অভিযোগে চার্জ গঠন করা হয়। প্রতিবেদনে মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে ১৯৭১ সালে সমাজসেবক রণদা প্রসাদ সাহা হত্যাসহ অপহরণ, অগ্নিসংযোগ ও গণহত্যার তিনটি অভিযোগ আনা হয়েছে। এর আগে গত (১১ জানুয়ারি) আসামির বিরুদ্ধে হত্যা, অপহরণ ও গণহত্যার তিনটি অভিযোগ দাখিল করেন প্রসিকিউটর রানা দাসগুপ্ত।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ