মির্জাপুরে ১৬৯টি সরকারি প্রাথমিক স্কুলে স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার, মির্জাপুর ॥
সুন্দর জাতি গঠন, সুষ্ঠু নির্বাচন পক্রিয়া এবং গণতান্ত্রিক চর্চার ধারাবাহিকতা বজায় উদ্দেশ্যে শিশু শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়েছে স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচন। টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ১৬৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এক যোগে উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্য দিয়ে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের আনুষ্ঠানিকতা দেখে মনে হয়েছে এ যেন জাতীয় কোন নির্বাচন। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোন কোন প্রার্থী ভোটারদের আকর্ষণ করতে বিদ্যালয় এলাকায় ছবিসহ পোস্টার সাটিয়েছিলেন। শনিবার (২৭ জানুয়ারি) সকাল নয়টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত বিদ্যালয়গুলোতে ভোট গ্রহণকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দিপনা লক্ষ করা যায়।
শিক্ষা অফিস সূত্র টিনিউজকে জানায়, শিশুদের মধ্যে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ সৃষ্টির লক্ষে স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচন ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। এ নির্বাচনে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাতজন শিক্ষার্থী কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়। তারা বিদ্যালয়ের পরিবেশ সংরক্ষণ (বিদ্যালয় আংগিনা ও টয়লেট পরিস্কার এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনা), পুস্তক এবং শিখন সামগ্রী, স্বাস্থ্য, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি, পানি সম্পদ, বৃক্ষ রোপন ও বাগান তৈরি ইত্যাদি এবং অভ্যর্থনা আপ্যায়নের দায়িত্ব পালন করবে বলে পুষ্টকামুরী আলহাজ শফি উদ্দিন মিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মাহবুব হোসেন টিনিউজকে জানান।
কোমলমতি শিক্ষার্থীরা অন্যরকম আনন্দের মধ্যে দিনটি পার করেছে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোন কোন প্রার্থী ফেসবুকের মাধ্যমেও প্রচারণা চালায়। এছাড়া সহপাঠিসহ সিনিয়র শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা নিজনিজ পছন্দের প্রার্থীকে জয়ী করতে প্রচারনা চালান।
শনিবার (২৭ জানুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত উপজেলার ১৬৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তৃতীয় শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা এবং ভোট প্রদান করে।
নির্বাচন অবাদ ও নিরপেক্ষ করার লক্ষে শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকেই প্রিজাইডিং, পুলিং কর্মকর্তা এবং নিরাপত্তার কাজে পুলিশ ও আনসার সদস্যের দায়িত্ব পালন করা হয়।
এ ব্যাপারে সদরের আলহাজ শফি উদ্দিন মিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শুভ্রত সরকার ও পুষ্টকামুরী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা শরফুন নেছা খানম টিনিউজকে বলেন, এ বছর নির্বাচনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনেক বেশী উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে।
একই বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণি থেকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতাকারী প্রথম বিজয়ী সাদিকা আফরিন আদ্রিতা বলে, সবাই আমাকে ভোট দিয়ে প্রথম করেছে। তারজন্য আমি খুব খুশি। সবার সাথে মিলেমিশে থাকতে চাই।
মির্জাপুর উপজেলা শিক্ষা অফিসার খলিলুর রহমান টিনিউজকে বলেন, শিশুদের মধ্যে গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ গড়ে তোলার জন্যই সরকার এই নির্বাচনের আয়োজন করেছে।
টাঙ্গাইল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল আজিজ টিনিউজকে বলেন, মির্জাপুরের কয়েকটি নির্বাচনী কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে শিশুদের উৎসাহ দেখে আমি মুগ্ধ হয়েছি। নির্বাচন পক্রিয়া দেখে মনে হয়েছে এটি কোন জাতীয় নির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ