মির্জাপুরে সীমান্তের ঈদ পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় উজ্জীবিত নেতাকর্মীরা

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার,মির্জাপুরঃ টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও আওয়ামীলীগের তৃনমূল নেতাকর্মীর সঙ্গে ঈদ পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক তাহরীম হোসেন সীমান্ত। গত শনি, রবি ও সোমবার উপজেলা সদরসহ ১৪টি ইউনিয়নের দলীয় কার্য়ালয় ও বিভিন্ন হাট-বাজার গিয়ে তিনি নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

এ সময় তিনি উপজেলার উয়ার্শী, আনাইতারা, বানাইল,  জামুর্কী, আজগানা, গোড়াই পশ্চিম, তরফপুর ও বাঁশতৈল ইউনিয়নে বেশ কয়েকটি অনির্ধারিত পথ সভায় যোগ দিয়ে বক্তৃতা করেন। এদিকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক তাহরীম হোসেন সীমান্তকে পেয়ে দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়। অনেক স্থানে দলীয় নেতাকর্মীরা তাকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন।

এ সময় মির্জাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সিয়াম সহ-সভাপতি  শেখ রাসেল হাসান রকি, যুগ্ম সম্পাদক ফুয়াদ হাসান হৃদয়, সাংগঠনিক সম্পাদক জিহাদ হাসান, মির্জাপুর পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াকিল আহমেদ, মির্জাপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মোবারক হোসেন সম্পাদক মারুফ হোসেনসহ বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী তার সঙ্গে ছিলেন।

গত ১১ মে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেন ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী। ওই কমিটিতে আইন বিষয়ে অধ্যয়নরত মেধাবী ছাত্রনেতা তাহরীম হোসেন সীমান্তকে সহ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়।

তাহরীম হোসেন সীমান্ত গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নৌকার পক্ষে তরুণ ভোটারদের  আকৃষ্ট করতে মাঠ চষে বেরিয়েছেন। তার প্রচারণায় নৌকার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়। ওই সময়ে প্রায় প্রতিদিনই তিনি নির্বাচনী সভা সমাবেশে বক্তৃতা করে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ব্যাপক আলোচনায় সৃষ্টি করেন তিনি। মেধাবী এই ছাত্রনেতার সঙ্গে মির্জাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীর সাথে রয়েছে সখ্য।ঈদ পরবর্তী সময়ে উপজেলার সাধারণ মানুষ ও তৃনমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে তার এই ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় মির্জাপুরের রাজনৈতিক মহলে বেশ আলোচনার সৃষ্টি করেছে।

মির্জাপুর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন, যুগ্ম সম্পাদ ফুয়াদ হাসান হৃদয় জানান, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ইতিহাসে এই প্রথম মির্জাপুরের কোন ছেলে সহ সম্পাদকের মতো গুরুত্বপুর্ন পদ পেয়েছে। আমরা মির্জাপুরবাসী তাকে নিয়ে গর্ববোধ করি। তারা বলেন, অত্যন্ত মেধাবী এই ছাত্রনেতা তার ব্যক্তিগত ইমেজ সৃষ্টি করে ইতিমধ্যে মির্জাপুরের সর্বস্তরের মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন।

মির্জাপুর পৌর ছাত্রলীগের সম্পাদক ওয়াকিল আহমেদ ও সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সম্পাদক  মারুফ হোসেন বলেন, তাহরীম হোসেন সীমন্ত পারিবারিকভাবেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জননেত্রী শেখ হাসিনার আদর্শ বুকে ধারন ও লালন করেন বলেই তিনি এই অল্প বয়সেই নেতাকর্মীর মধ্যে তিনি এত জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পেরেছেন।

এ ব্যাপারে তাহরীম হোসেন সীমান্ত বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ পারিবারিকভাবে হৃদয়ে ধারন করে বড় হয়েছি।জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের যে সংগ্রাম শুরু হয়েছে একজন ক্ষুদ্র সমর্থক হিসেবে সেই সংগ্রামের শরীক সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে যাবেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ