মির্জাপুরে যুবলীগ নেতার উদ্যোগে ঢেউটিন ও সরঞ্জাম বিতরণ

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার, মির্জাপুর ॥
টাঙ্গাইল জেলা যুবলীগের সহসভাপতি ও জেলা চেম্বার অব কমার্সের সাধারণ সম্পাদক খান আহমেদ শুভর উদ্যোগে মির্জাপুরে ২২ লাখ ২২ হাজার টাকার রঙ্গিন ঢেউটিন ও ঘর তৈরির সরঞ্জাম (শেলটার কিটস) বিতরণ করা হয়েছে। শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) সকালে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার মহড়ো, জামুর্কী ও ভাতগ্রাম ইউনিয়নে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ১০১ পরিবারের মধ্যে ঘর তৈরির জন্য এসব বিতরণ করা হয়।
এর আগে গত (৩০ অক্টোবর) উপজেলার মহেড়া, জামুর্কী, ফতেপুর, বানাইল ও ভাতগ্রাম ইউনিয়নের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় ১২শ’ পরিবারের মধ্যে প্রত্যেককে চার হাজার টাকা করে ৪৮ লাখ টাকা ও ৮ প্রকারের সবজি বীজ বিতরণ করেন। রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি টাঙ্গাইল জেলা ইউনিট এ অর্থ ও ঘর তৈরির রঙ্গিন ঢেউটিন এবং সরঞ্জাম (শেলটার কিটস) বিতরণ করেন।
জানা গেছে, এ বছর বন্যায় মির্জাপুর উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১৪টি ইউনিয়নের বাড়ি-ঘর ও রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়। রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সদস্য যুবলীগ নেতা খান আহমেদ শুভর প্রচেষ্টায় মির্জাপুরে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সদস্যদের দিয়ে সরেজমিন ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করেন। এরমধ্যে প্রথম ধাপে গত (৩০ অক্টোবর) মহেড়া ইউনিয়নে ২৫৮টি, জামুর্কী ইউনিয়নে ২২২টি ও ভাতগ্রাম ইউনিয়নে ২০২টি, ফতেপুর ও বানাইল ইউনিয়নের পাঁচ শতাধিক ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে ৪৮ লাখ টাকা ও সবজি বীজ বিতরণ করা হয়।
এ সময় রেড ক্রিসেন্ট টাঙ্গাইল জেলা ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক এম এ রৌফ, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির টাঙ্গাইল জেলা ইউনিটের মেম্বার টাঙ্গাইল জেলা যুবলীগের সহসভাপতি ও জেলা চেম্বার অব কমার্সের সাধারণ সম্পাদক খান আহমেদ শুভ, মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মাহফুজুর রহমান কনক, যুগ্ম সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, দুই সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল ও মাসুদ রানা মাসুম, ভাতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম আজাহার, মহেড়া ইউপি চেয়ারম্যান বাদশা মিয়া, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান আকন্দ, উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু সাইদ মিয়া, উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক সেলিম শিকদার, জামুর্কী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রউফ, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মীর আসিফ অনিক, সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা ছানোয়ার হোসেন, রবিন মিয়া, সবুজ মিয়া, আমিরুল মোমেনিন সাদ্দাম প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
সকাল সাড়ে নয়টায় পাকুল্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যাল মাঠ থেকে মহেড়া ও জামুর্কী ইউনিয়নের ৩৯টি পরিবার এবং বেলা বারটার দিকে ভাতগ্রাম ইউনিয়নের দুল্যা বাজার থেকে ৬২টি পরিবারের মধ্যে ১ হাজার ৮১৮ ফাইল রঙ্গিন ঢেউটিন ও একটি করে কোদাল, খনতি, করাত, ৫০ ফিট মোটা রশি, পাত, কাতানি, বালচে, জিয়াই তার, চিকন রশি, স্ক্রু এবং তারকাটা বিতরণ করা হয়।
ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের ছাহেরা বেগম, রহমান খান ও স্বপ্না বেগমসহ অনেকেই টিনিউজকে বলেন, এ বছরের বন্যায় তাদের বাড়িঘরের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এর আগে ৪ হাজার টাকা করে পেয়েছি। এবার ঢেউটিন ও সরঞ্জাম পেলাম। ক্ষতিগ্রস্ত একটি পরিবারের জন্য অনেক পাওয়া। যাদের মাধ্যমে টাকা ও ঘর তৈরির মালামাল পেলাম আল্লাহ যেন তাদের ভালো করেন।
রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি টাঙ্গাইল ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক এম এ রৌফ ও সদস্য যুবলীগ নেতা খান আহমেদ শুভ টিনিউজকে বলেন, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি মির্জাপুরের তিনটি ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে দ্বিতীয় ধাপের অনুদান বিতরণ সম্পন্ন হয়েছে। পরবর্তীতে আরও অনুদান বিতরণ করা হবে বলে তারা উল্লেখ করেন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ