দেলদুয়ারে এক ফ্রিজ ও দুই বাল্বে বিদ্যুৎ বিল ১০ লাখ টাকা!

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে একটি ফ্রিজ ও দুইটি বাল্ব চালিয়ে বিদ্যুৎ বিল এসেছে প্রায় দশ লাখ টাকা বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার পাথরাইলের সাহা পাড়া গ্রামের দুলাল মিয়ার মিটারে এমন অদ্ভুত বিল তৈরি করেছে টাঙ্গাইল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির দেলদুয়ার জোনাল অফিস। একটি আবাসিক মিটারে এতো টাকা বিল দেখে দুশ্চিন্তায় মধ্যে পড়েছেন বাড়িওয়ালা দুলাল মিয়া।
জানা যায়, ডিসেম্বরের বিলের কাগজে উল্লেখ করা হয়েছে, বর্তমান রিডিং ৯৪৫৭০ ও পূর্বের রিডিং ৯৪৪০ ইউনিট। এতে ব্যবহার দেখানো হয়েছে ৮৫১৩০ ইউনিট। ব্যবহৃত ৮৫১৩০ ইউনিট দেখিয়ে ডিসেম্বরে বিল তৈরি করা হয়েছে ৯ লাখ ৫৩ হাজার ৯৪৫ টাকা। জরিমানাসহ ৯ লাখ ৯৯ হাজার ৩৭০ টাকা। প্রায় দশ লাখ টাকা।
মিটারের মালিক দুলাল মিয়া টিনিউজকে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সদস্য। আমার বাড়িতে পল্লী বিদ্যুতের মিটার রয়েছে। মিটারের নম্বর ০৯২৩৩৩৪। এসএমএস হিসাব নং-১০০২০৩৩৫০২০৩০। এই মিটার থেকে একটি ফ্রিজ আর দুইটি বাল্ব ও একটি টেলিভিশন চালানো হয়। নিয়মিত ৫/৬শ’ টাকা বিদ্যুৎ বিল আসে। হঠাৎ দশ লাখ টাকা বিদ্যুৎ বিল দেখে দুশ্চিন্তার মধ্যে রয়েছি। তিনি টিনিউজকে আরও বলেন, তার মিটারে নভেম্বর মাসে বিল এসেছে ৪৯৫ টাকা। নভেম্বর পর্যন্ত তার সকল বিল পরিশোধ রয়েছে। বিল পরিশোধের বাৎসরিক সার্টিফিকেটও (ক্লিয়ারেন্স) রয়েছে। দশ লাখ টাকা বিল দেখায় পল্লী বিদ্যুৎ কর্মচারী বিলের কাগজটি নিয়ে যায়। তবে বিলের কাগজ হাতে পেয়ে বিশ^বিদ্যালয় পড়ুয়া তার ছেলে নাহিদ খন্দকার বিলের ছবি তুলে রাখেন। বিলের কাগজ পল্লী বিদ্যুৎ অফিস নিয়ে নিলেও পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে ঝামেলা এড়াতে আইনের আশ্রয় নেয়ার কথা ভাবছেন দুলাল মিয়া।
নাহিদ খন্দকার টিনিউজকে বলেন, পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের লোক বাসায় এসে বিলটি হাতে দেয়। দশ লাখ টাকা বিল দেখে আশ্চার্য হয়ে বিলের বিষয়টি পল্লী বিদ্যুতের লোকটিকে জানানো হয় এবং বিলের কপির একটি ছবি তুলে রাখা হয়। পরে বিলের কপিটি বিদ্যুৎ অফিসের লোক নিয়ে নেয়। বিদ্যুৎ অফিসের ভুলে গ্রাহক হয়রানি নিরসন চান তিনি।
এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির দেলদুয়ার জোনাল অফিসের ডিজিএম বিল্পব কুমার সরকার টিনিউজকে বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিল না। একটি আবাসিক মিটারের এমন বিল হওয়ার কথা না। ভুল পোস্টিংয়ের কারণে এমন বিল হতে পারে। বাড়িওয়ালার দুশ্চিন্তার কারণ নেই। আমি অবশ্যই বিলটি সংশোধন করে দিব।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ