Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

টাঙ্গাইল শহীদ মিনারে মাসব্যাপী উন্মুক্ত ইফতার মাহফিল

শেয়ার করুন

নোমান আব্দুল্লাহ ॥
টাঙ্গাইল শহরের শহীদ মিনারে ‘মাসব্যাপি সবার জন্য ইফতার’ চলছে। শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে টেবিলগুলোতে সাজানো ইফতারের পসরা। সেখানে দাঁড়িয়ে আছেন বেশকয়েকজন ব্যক্তি। পাশেই ব্যানারে লেখা রয়েছে ‘মাসব্যাপী সবার জন্য ইফতার।’ ইফতারের সময় যতই ঘনিয়ে আসছে অসহায় গরিব মানুষ কিংবা পথচারী- সবাই এখান থেকে বিনামূল্যে ইফতারি সংগ্রহ করছেন। ইফতারের সাইরেন বাজার সাথে সাথে রীতিমতো ভীড় লেগে গেল। বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার লোকজন এখান থেকে বিনামূল্য ইফতারি সংগ্রহ করলেন।
রমজানের অষ্টম দিন মঙ্গলবার (১৪ মে) শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার গেলে এমন চিত্র দেখা যায়।
রমজান মাসে অনেকেই অসহায়, গরিব ও দুস্থ মানুষকে সাহায্য-সহযোগিতা করে থাকে। তবে এক ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে ত্রিবেণী টাঙ্গাইল এবং বিন্দুবাসিনী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি’র ১৯৯২ ব্যাচ। তারা শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে মাসব্যাপী উন্মুক্ত ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেছে। এ নিয়ে সপ্তম বারের মতো তারা এই ধরনের আয়োজন করেছেন। প্রতিদিন প্রায় ২৫০ থেকে ৩০০ জনের মতো রোজাদার এখানে ইফতার করেন। এতে প্রতিদিন প্রায় ১৫ হাজার টাকার মতো খরচ হয়। সংগঠনের নিজস্ব তহবিল থেকে এ খরচ করা হয়। প্রতিদিন ইফতারে দেয়া হচ্ছে মুড়ি, খেঁজুর, পিয়াঁজু, ছোলা, আপেল, জিলাপি, শসা, শরবতসহ বেশকয়েকটি আইটেম। এছাড়াও সপ্তাহে দুই দিন খিচুরি-মাংসর আয়োজন করা হয়। ইফতারের আগে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।
ইফতার করতে আসা ৫৫ বছরের এক বৃদ্ধ মোশারফ হোসেন টিনিউজকে বলেন, আমি প্রথম রোজা থেকেই এখানে ইফতার করি। ঘরোয়া পরিবেশে এখানে ইফতার করা যায়। আমার মতো শতশত মানুষ তৃপ্তি সহকারে এই জায়গায় ইফতার করেন। যারা এই আয়োজন করেছেন তাদের মঙ্গল ও দীর্ঘায়ু কামনা করি। রুস্তম আলী নামে এক ভিক্ষুক টিনিউজকে বলেন, আমরা সারাদিন পথে ঘাটে সাহায্যের জন্য ঘুরে বেড়াই। ঘুরতে ঘুরতে নিরালা মোড়ে এসে প্রতিদিন ইফতার করি। শরবত ও ঠান্ডা পানি খাওয়ার পর খুব ভাল লাগে। খাবার খাওয়ার পর ক্লান্ত দূর হয়। আমাদের মতো অসহায় এবং গরীব লোকদের জন্য এমন আয়োজন সত্যিই প্রশংসনীয়।
এ ব্যাপারে ত্রিবেণীর আজীবন সদস্য সাইফুল ইসলাম টিনিউজকে বলেন, ত্রিবেণীর জন্মলগ্ন থেকেই মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় এ আয়োজন করা হয়েছে। অনেকেই আছে ইফতার করতে পারবেন না, এই ভয়ে রোজা রাখেন না। আবার কেউ কেউ আছেন রোজা রেখে ভালো ইফতার করতে পারেন না। অন্যদিকে পথচারী রয়েছে যারা কাজের জন্য রাস্তায় আটকে যান তারাও সময় মতো ইফতার করতে পারেন না। এসব পরিস্থিতি চিন্তা করে আমরা বিনামূল্যে গরিব ও অসহায় থেকে শুরু করে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের জন্য বিনামূল্যে উন্মুক্ত ইফতারের উদ্যোগ নিয়েছি। যতদিন আমরা বেঁচে থাকবো ততদিন এ রকম কাজ করবো।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ