টাঙ্গাইল ভূমি ব্যবস্থাপনায় মাঠ প্রশাসনে তীব্র জনবল সংকট

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইল জেলায় ইউনিয়ন ও পৌর ভূমি অফিস আছে সর্বমোট একশত একটি। প্রতিটি অফিসে একজন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কমকর্তা এবং একজন ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তার পদ রয়েছে। সে অনুযায়ী একশত একটি ইউনিয়ন/পৌর ভূমি অফিসের বিপরীতে দুইশত দুইজন কর্মকর্তা থাকার কথা থাকলেও বর্তমানে কর্মরত রয়েছে মাত্র একশত দশজন।
এ বিষয়ে বাংলাদেশ ভূমি অফির্সাস কল্যাণ সমিতি, টাঙ্গাইল জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক ও স্বাধীনতা ভূমি অফির্সাস পরিষদ, জাতীয় কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, কালিহাতি উপজেলার বাংড়া ইউনিয়ন ভূমি অফিসের দায়িত্বরত ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন টিনিউজকে জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা দেশরতœ প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা মাঠ প্রশাসনে নিয়োজিত ভূমি ব্যবস্থাপনার শিকড় ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা এবং একজন ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা পদের কর্ম পরিধীসহ সকল বিষয় অধিকৃত যাচাই-বাছাই পূর্ব অত্যন্ত যৌক্তিক বিবেচনায় ভূমি ব্যবস্থাপনায় মাঠ প্রশাসনের সর্বনিম্নস্তরে নিয়োজিত নিরলস পরিশ্রমকারী এবং বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে সরকারী স্বার্থ রক্ষাকারী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তাগণের দায়িত্ব ও কর্মপরিধি বিবেচনায় যৌক্তিক কারণেই ইউনিয়ন পর্যায়ে কর্মরত অন্যান্য বিভাগের কর্মকর্তাদের বিশেষ করে স্বাস্থ্য বিভাগের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার (সাবেক চিকিৎসা সহকারী) এবং উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের (সাবেক ব্লক সুপারভাইজার) পদ মর্যাদা ও বেতন স্কেলের সাথে সামঞ্জস্য রেখে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীন ইউনিয়ন পর্যায়ে কর্মরত ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তাগনের নিয়োগ বিধি সংশোধন ও বেতন স্কেল উন্নীত করনের জন্য প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটি’র ০৯.০৪.২০০৯ তারিখের সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
উল্লেখ্য, মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ কর্তৃক ০১.০৩.২০০৯ তারিখের ১৩৯নং স্মারকের পরিপত্রের মাধ্যমে ‘নিকার’ এর কার্যপরিধি সংশোধন করা হয়। উক্ত পরিপত্রে উল্লেখ আছে যে “বিভিন্ন অফিসের সাংগঠনিক কাঠামোভুক্ত নিম্ন শ্রেণীর পদকে উচ্চতর শ্রেণীতে উন্নীতকরণ, নতুন পদ সৃজন বা পদ বিলুপ্তকরণ ও সংশ্লিষ্ট সাংগঠনিক কাঠামো পরিবর্তন সংক্রান্ত প্রস্তাব এখন থেকে পূর্বের ন্যায় ‘প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটি’তে বিবেচিত হবে এবং উক্ত কমিটির সুপারিশক্রমে প্রশাসনিক মন্ত্রণালয় কর্তৃক বিদ্যমান বিধি-বিধান ও আনুষ্ঠানিকতা অনুসরণপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে”। উক্ত পরিপত্রের আলোকে সচিব কমিটির সুপারিশই চুড়ান্ত বিধায় প্রশাসনিক মন্ত্রণালয় পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ করে অর্থাৎ সচিব কমিটির অনুমোদিত বেতন স্কেল উন্নীতকরণের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক ২৩.০৫.২০১০ তারিখের ৪০৫নং স্মারকে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তাগনের বেতন স্কেল উন্নীত করণের জিও জারী করা হয়। এর আলোকে উন্নীত বেতন স্কেলে ১২তম গ্রেডে রাজবাড়ী জেলায় ছয়জন ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা নিয়োগ প্রদান করা হলে তারা তিন বছর পর্যন্ত বেতন -ভাতাদি আহরণ করেন।
‘বেতন বৈষম্য দূরীকরণ সংক্রান্ত মন্ত্রীসভা কমিটি’র সদয় অনুমোদনের পর আপনি (প্রধানমন্ত্রী) সদয় অনুমোদনের পর সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে অর্থ বিভাগ ৩০.০৫.২০১৩ তারিখের ১২৪নং স্মারকে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধীন ইউনিয়ন পর্যায়ে কর্মরত ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা পদের বেতন স্কেল কতিপয় শর্তে পূনঃনির্ধারণ করে আদেশ জারী করেন। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার জন্য ভূমি মন্ত্রণালয় ২২.০৭.২০১৩ তারিখের ৫০৭ ও ৫০৮নং পত্র জারী করেন। এজন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি চিরকৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি। কিন্তু অত্যান্ত হতাশা সাথে বলতে হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রী ও গেজেটকৃত অনুমোদনকৃত আমাদের উন্নীত বেতন স্কেলর উপর তৎকালীন জনপ্রশাসন সচিবের টেলিফোনের নির্দেশে সম্পূর্ণ অযৌক্তিকভাবে ভূমি মন্ত্রনালয়ের ২৫.০৭.২০১৩ তারিখের ৫২৬ নং স্মারকে স্থগিত আদেশের কারণে। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদিত ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা পদের আপগ্রেডকৃত বেতন স্কেল তৎকালীন জনপ্রশাসন সচিব টেলিফোনের প্রেক্ষিতে সম্পূর্ণ বেআইনীভাবে একজন সিনিয়র সহকারী সচিব স্থগিত আদেশ প্রদানের ধৃষ্টতা দেখাতে পারেন কিনা জানা নেই!
ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা পদের আপগ্রেডকৃত বেতন স্কেলের স্থগিত আদেশ থাকায় এবং উক্ত পদ দুটিতে পদোন্নতি ও নিয়োগ বন্ধ থাকায় ভূমি প্রশাসন স্থবির হয়ে পড়েছে। কোন কোন জেলায় একজন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী/ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তাকে ২/৩ টি অফিসের দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে যা অত্যন্ত কষ্টসাধ্য ও সরকারী স্বত্ব-স্বার্থ ও রাজস্ব আদায়ের অন্তরায়। স্থবির হয়ে পড়া ভূমি রাজস্ব প্রশাসনে গতিশীলতা আনয়নের নিমিত্ত ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা পদের আপগ্রেডকৃত বেতন স্কেলের স্থগিত আদেশ প্রত্যাহারের সদয় নির্দেশনা প্রদান করে দেশের অবদমিত ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তাগনের ন্যায্য অধিকার ফিরিয়ে দিতে দেশরতœ প্রধানমন্ত্রী প্রতি আকুল আবেদন জানিয়েছেন টাঙ্গাইল জেলার ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তারা।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ব্রেকিং নিউজঃ