Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

টাঙ্গাইলে ভূমি প্রশাসনে ২০৩টি পদ শূন্য ॥ ব্যাহত হচ্ছে রাজস্ব কার্যক্রম

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইল জেলায় ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার ৭১টি পদসহ ভূমি প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ে ২০৩টি পদ শূন্য রয়েছে। ফলে মাঠ পর্যায়ে জনবল-সংকটে ব্যাহত হচ্ছে ভূমি রাজস্ব প্রশাসনের কার্যক্রম। এতে ভোগান্তির শিকার হচ্ছে জেলার সাধারণ মানুষ। এছাড়া জনবল-সংকটে কোথাও কোথাও এক ব্যাক্তিকে একাধিক দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে।
জেলা প্রশাসনের রাজস্ব বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, জেলার ১০১টি ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা পদের মধ্যে কর্মরত আছেন মাত্র ৩০টি পদে। বাকি ৭১টির পদ শূন্য। এছাড়া ১০১টি ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তার পদের মধ্যে ১৬টি পদ শূন্য রয়েছে। ফলে ইউনিয়ন পর্যায়ের ভূমি কার্যালয়গুলোয় কোথাও কোথাও একজন কর্মকর্তাকে একাধিক কার্যালয়ের দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। আবার কোনো কোনো ইউনিয়ন ভূমি কার্যালয়ে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করছেন ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তারা।
নাগরপুর উপজেলার পাকুটিয়া ও মোকনা দুই ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করছেন ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম। এ ব্যাপারে তিনি টিনিউজকে বলেন, দুটি কার্যালয়ের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে দ্বিগুন কাজ করতে হচ্ছে। এক দিন মোকনা ইউনিয়ন, আর এক দিন পাকুটিয়া ইউনিয়ন কার্যালয়ে দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। ফলে এক কার্যালয়ে বসলে আরেক কার্যালয়ে ভূমি-সংক্রান্ত কাজে আসা লোকজনকে ঘুরে যেতে বা ফিরে যেতে হচ্ছে। এতে তারা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।
কালিহাতির বাংড়া ইউনিয়ন ভূমি কার্যালয়ের ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তার ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব পালন করছেন ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন। এ ব্যাপারে তিনি টিনিউজকে বলেন, আদালতে সরকারি জমিজমা বিষয়ে সাক্ষ্য দিতে, জমির নামজারি আবেদনের তদন্তসহ সরকারি বিভিন্ন কাজে প্রায়ই মাঠ পর্যায়ে যেতে হয়। তখন কার্যালয়ে সেবা প্রার্থী লোকজন এলে তাদের ফিরে যেতে হয়।
রাজস্ব বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রতিটি উপজেলায় সহকারী কমিশনারের (ভূমি) কার্যালয়ে একজন করে কানুনগোসহ জেলায় মোট ১৫টি কানুনগো পদ থাকলের শুধু মির্জাপুরে এ পদে লোক আছে। বাকি ১৪টি পদই দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে।
কানুনগো সহকারী কমিশনারের (ভূমি) পক্ষে জমি সংক্রান্ত মামলাগুলোর সরেজমিনে তদন্ত ও যাচাই-বাছাইয়ের দায়িত্ব পালন করেন। কিন্তু কানুনগো পদ শূন্য থাকায় উপজেলা পর্যায়ে সে দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে সার্ভেয়ারদের। সার্ভেয়ারদের নিজ দায়িত্ব পালনের পর অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে এটি করতে হচ্ছে।
সূত্র জানায়, জেলায় রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর (আরডিসি) ও ভূমি হুকুম দখল কর্মকর্তার পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। এ পদে একজন করে সহকারী কমিশনার দায়িত্ব পালন করছেন। সহকারী প্রকৌশলী ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী পদে আজ পর্যন্ত পদায়নই করা হয়নি। প্রধান সহকারী কাম হিসাবররক্ষের ১২টি পদের ১১টিই শূন্য রয়েছে। মিউটেশন সহকারীর ১২টি পদের সব কটিই শূন্য রয়েছে। ক্রেডিট চেকিং কাম সায়রাত সহকারী ২৪টি পদের ১২টি পদ শূন্য রয়েছে। পসেস সার্ভারের ২৬টি পদের মধ্যে ১২টি, চেইনম্যান পদে ১৪টি, অফিস সহায়ক ২৮টি, নাজির কাম ক্যাশিয়ার ২টি, সার্টিফিকেট পেশার ৩টি, সার্টিফিকেট সহকারী ৩টি ও কার্য়সহকারীর ১টি পদ শূন্য রয়েছে।
এসব বিষয়ে টাঙ্গাইল অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) অতুল ম-ল টিনিউজকে বলেন, উচ্চ আদালতের রিট মামলার আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা এবং ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা পদে নিয়োগ ও পদোন্নতি স্থগিত হয়েছে। অন্যান্য শূন্য পদের বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ