টাঙ্গাইলে বিশেষ অভিযানে বিএনপি-জামায়াতের ২৪ জন আটক

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুস সালাম পিন্টুর নির্বাচনী এলাকা টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর, নাগরপুর উপজেলাসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে বিএনপি, ছাত্রদল ও যুবদলের ২৪ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গল রাতে ও বুধবার (৯ ও ১০ অক্টোবর) তাদেরকে আটক করা হয়।
অভিজিৎ ঘোষ, ভূঞাপুর থেকে জানান, ভূঞাপুরে ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতার আশঙ্কায় বিএনপির পাঁচজন নেতাকর্মীকে আটক করেছে থানা পুলিশ।
মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) রাতে উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক সেলিমুজ্জামানের বাড়ি থেকে অভিযান চালিয়ে উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ইব্রাহীম খলিল তরফদার স্বপন, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক খন্দকার জুলহাস উদ্দিন, পৌর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মহসিন তালুকদার দিপু, ইব্রাহীম খাঁ সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি দেলোয়ার হোসেন ও যুবদল নেতা ফরিদ হোসেনকে আটক করে করা হয়।
ভূঞাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুস ছালাম মিয়া টিনিউজকে জানান, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতার উদ্দেশ্যে আটককৃতরা মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) রাতে ভূঞাপুর বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সেলিমুজ্জামান তালুকদার সেলুর নব নির্মিত ভবনে গোপনে মিটিং করছিল। এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। পরে তাদের বুধবার (১০ অক্টোবর) টাঙ্গাইল আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
রামকৃষ্ণ সাহা রামা, নাগরপুর থেকে জানান, টাঙ্গাইলের নাগরপুরে রাষ্ট্রবিরোধী গোপন বৈঠকের সময় বিএনপি-জামায়াত ও শিবিরের ৫ নেতাকর্মীকে আটক করেছে নাগরপুর থানা পুলিশ। মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) রাতে উপজেলার পাকুটিয়া ইউনিয়নের রাথুরাতে অবস্থিত মুন ব্রিকফিল্ড থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃতরা হলো- নাগরপুর উপজেলার মামুদনগর গ্রামের শিবির নেতা শাহ আলম শাহীন, পাঁচরাইল গ্রামের ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রতন মিয়া, ছোট বাগজান গ্রামের ইউনিয়ন যুবদলের সহ-সভাপতি এনামুল করিম লিটন, দুয়াজানী গ্রামের বিএনপি নেতা আজিজুল ইসলাম এবং মামুদনগর গ্রামের বিএনপি নেতা আব্দুল মজিদ মিয়া।
এ ব্যাপারে নাগরপুর থানার (ওসি) মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন টিনিউজকে বলেন, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়কে কেন্দ্র করে পুলিশ আগে থেকেই সর্তক অবস্থানে ছিল। মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ পাকুটিয়ার মুন ব্রিকস এ অভিযান চালায়। এ সময় সরকার বিরোধী গোপন বৈঠক করা অবস্থায় বিএনপি-জামায়াত ও শিবিরসহ বিভিন্ন মামলার ৯ জনকে আটক করা হয়। এদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে বুধবার (১০ অক্টোবর) টাঙ্গাইল আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
এছাড়া জেলার অন্যান্য স্থান থেকে আটককৃতদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে নাশকতা ও রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বিঘ্নের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরে আটককৃতদের বুধবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে টাঙ্গাইল আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আহাদুজ্জামান মিয়া টিনিউজকে জানান, জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে একদিনে ২৪জনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা সরকার বিরোধী কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এছাড়া রাতে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতারী পরোয়ানাভূক্ত আসামীদেরকেও গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। পুলিশের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ব্রেকিং নিউজঃ