টাঙ্গাইলে বন্ধ হয়েছে সব ধরনের প্রিন্টের পত্রিকা সরবরাহ

শেয়ার করুন

মোস্তফা কামাল, সখীপুর ॥

টাঙ্গাইল জেলা শহরসহ সখীপুর ও অন্যান্য উপজেলাগুলোতে সব ধরনের পত্রিকা সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) থেকে। জেলা ও উপজেলাগুলোর পেপার হাউজগুলো টিনিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এতে করে যাদের প্রিন্টের পত্রিকা পড়ার নিয়মিত অভ্যাস তারা বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) সকাল থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।
সখীপুর পেপার হাউজের সত্তাধিকারী শাহিনুজ্জামান শাহীন টিনিউজকে বলেন, চলমান করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে অধিকাংশ গ্রাহক বাসাবাড়িতে পত্রিকা রাখা বন্ধ করে দিয়েছেন। এছাড়া সরকারি-বেসরকারি অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও দোকানপাট বন্ধ থাকায় পত্রিকার চাহিদা একেবারেই কমে গেছে। অন্যদিকে হকারদের নিরাপত্তার বিষয়টিও বিবেচনা করা হয়েছে। এসব কারণে সখীপুরে আপাতত আগামী (৪ এপ্রিল) পর্যন্ত পত্রিকা সরবরাহ বন্ধ থাকবে। গ্রাহকদের সাময়িক অসুবিধার জন্যে তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
এদিকে খবরের কাগজের মাধ্যমে করোনা ভাইরাস ছড়ানোর আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কারণ, তা ছাপা হয় পুরো যান্ত্রিক ব্যবস্থাপনায়। প্যাকেটও করা হয় যন্ত্রের মাধ্যমেই। এদিকে সখীপুরে কর্মরত বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকের সাংবাদিকরা টিনিউজকে জানান, নিরাপত্তার কারণে সখীপুরে পত্রিকা আসা বন্ধ হলেও সকল পত্রিকারই অনলাইন সংস্করণ চালু রয়েছে। সখীপুরের পাঠকরা অনলাইনে সংবাদ পড়তে পারবেন।
সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন ‘নোয়াব’ এর সূত্র ধরে ‘করোনা ভাইরাস কাগজে ছড়ায়না’ জানিয়ে পাঠকদের সচেতন করেছেন। নিজেদের উদ্যোগেই সখীপুরে পত্রিকা সরবরাহের জন্য সকল পাঠকদের প্রতি আহবানও জানান তিনি।
পত্রিকা সরবরাহ বন্ধ হওয়ার বিষয়ে সখীপুরে প্রিন্ট ও অনলাইন সংবাদ মাধ্যমে কর্মরত একাধিক সাংবাদিক টিনিউজকে জানান, দায়িত্বশীল অনলাইন নিউজপোর্টালের মাধ্যমেই সব খবর এখন জানা যায়। তাছাড়া প্রায় সকল প্রিন্টের পত্রিকারও অনলাইন সংস্করণ রয়েছে। তাই প্রিন্টের পত্রিকার সরবরাহ আপাতত বন্ধ থাকলেও তেমন কোনো অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ