টাঙ্গাইলে নতুন করে আরও ১১ জন করোনায় আক্রান্ত

শেয়ার করুন

এম কবির ॥
টাঙ্গাইলে গত ২৪ ঘন্টায় শুক্রবার (২৯ মে) নতুন করে ১১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত জেলায় মোট ১৪৬ জনের দেহে করোনার ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ভূঞাপুরে ৬, সখীপুরে ৬, মির্জাপুরে ৬, নাগরপুরে ৫, টাঙ্গাইল সদরে ৪, দেলদুয়ারে ৪, গোপালপুরে ৩, ধনবাড়ীতে ২, মধুপুরে ২ ও ঘাটাইলে ১ জনসহ মোট ৩৯ জন সুস্থ হয়েছে। আর ঘাটাইলে ২, মির্জাপুরে ১ ও ধনবাড়ীতে ১ জনসহ মোট ৪ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এদিকে গত (৭ এপ্রিল) থেকে টাঙ্গাইল জেলা লকডাউন ঘোষনা করা হয়। শুক্রবার (২৯ মে) পর্যন্ত লকডাউনের ৫২তম দিন অতিবাহিত হয়েছে।
আক্রান্তরা হলো- মধুপুরের হাসনাইয়ে ১, শ্রীরামবাড়ীতে ১ ও মহাদাসে ১ জন। টাঙ্গাইল সদরের দিঘুলিয়ায় ১, পূর্ব আদালতপাড়া ১ ও চরপাকুল্যায় ১ জন। কালিহাতির ফুলতলায় ১ জন ও সিংনায় ১ জন। ঘাটাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রো ১ জন, দেলদুয়ারের দুল্লায় ১ জন ও নাগরপুরের মামুদনগর ইউনিয়নের চামটায় ১ জন।
এদিকে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইলের বিভিন্ন উপজেলা থেকে ৪৮৭৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। শুক্রবার (২৯ মে) নতুন করে ৭৯ জনের নমুনা ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ১১ জনের করোনা রেজাল্ট পজেটিভ এসেছে। হোম কোয়ারেন্টাইনের আওতায় আনা হয়েছে ১৬৪ জনকে। ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে ৩৩৯ জনকে। রবিবার (২৪ মে) পর্যন্ত ৪৪৪১ জনের রিপোর্ট হাতে পেয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এদের মধ্যে ১৪৬ জনের ফলাফল প্রজেটিভ এসেছে। বাকিগুলোর ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। ৩৫৯টি নমুনার রেজাল্ট এখনো পাওয়া যায়নি। বর্তমানে জেলায় মোট ১৪৬ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে ৫ জনকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের ৫০ বেডের করোনা ডেডিকেডেট ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। আক্রান্ত বাকি ৯৮ জন ঢাকা, ময়মনসিংহ হাসপাতালে ও নিজ নিজ বাসায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।
এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান টিনিউজকে বলেন, টাঙ্গাইল জেলায় এ পর্যন্ত ১৪৬ জন করোনা ভাইরাস রোগী সনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে মির্জাপুরে ৩১, দেলদুয়ারে ২০, নাগরপুরে ১৬, মধুপুরে ১৩, টাঙ্গাইল সদরে ১১, ধনবাড়ীতে ১১, কালিহাতীতে ৯, ঘাটাইলে ৯, ভূঞাপুরে ৯, গোপালপুরে ৮, সখীপুরে ৭, ও বাসাইলে ২ জন রয়েছে। এদের মধ্যে ভূঞাপুরে ৬, সখীপুরে ৬, মির্জাপুরে ৬, নাগরপুরে ৫, টাঙ্গাইল সদরে ৪, দেলদুয়ারে ৪, গোপালপুরে ৩, ধনবাড়ীতে ২, মধুপুরে ২ ও ঘাটাইলে ১ জনসহ মোট ৩৯ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এছাড়া জেলার ঘাটাইলে মহিউদ্দিন, আব্দুল মান্নান খান, মির্জাপুরে রেনু বেগম ও ধনবাড়ীতে আব্দুল করিম ভুইয়া নামে ৪ জন মারা গিয়েছে।
জেলায় এখন পর্যন্ত ১০৫৫৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনের ও হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনের আওতায় আনা হয়েছিল। এদের মধ্যে ৮ হাজার ৮৫১ জনকে কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছে। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ১ হাজার ৭০৪ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের ৫০ বেডের করোনা ডেডিকেডেট ইউনিটে ভর্তি রয়েছে ৫ জন।
উল্লেখ্য, গত (১ মার্চ) থেকে রবিবার (১৭ মে) পর্যন্ত বিদেশে থেকে জেলায় এসেছে ৫ হাজার ৭০৫ জন। কোভিড-১৯ চিকিৎসায় প্রস্তুত রয়েছে জেলার সরকারী হাসপাতালের ৫০টি বেড, উপজেলা পর্যায়ে আইসোলেশন বেড রয়েছে ৫৮টি। ডাক্তার রয়েছে ২৪২ জন, নার্স রয়েছে ৪১৯ জন। করোনা আক্রান্ত রোগী আনা নেয়া করার জন্য এ্যাম্বুুলেন্স রয়েছে ২টি। এখন পর্যন্ত ব্যক্তিগত সুরক্ষা সমগ্রী পিপিই মজুদ রয়েছে ৫ হাজার ৫৯১টি এবং মাস্ক ৪ হাজার ৮টি। এছাড়া এখন পর্যন্ত জেলায় ১ লাখ ৮১ হাজার ৬০০ পরিবারের মধ্যে ২২৩২ মে.টন চাল ও ৫৮ হাজার ৩০৩টি পরিবারের মধ্যে নগদ ১ কোটি ১৬ লাখ ৬০ হাজার ৫০০ টাকা ও শিশু খাদ্য বাবদ ১৮ হাজার ৬৯১ পরিবারকে ৩৩ লাখ ৪ হাজার ৯৬০ টাকা প্রদান করেছে জেলা প্রশাসন।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ