এলেঙ্গায় সড়ক বিভাগের ভূমি জবর দখলের মহোৎসব

শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা পৌরসভার পৌলী ব্রিজের উত্তর পাশে টাঙ্গাইল সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণাধীন প্রায় তিন একর ভূমি জবর দখল করার মহোৎসব চলছে! ইতোমধ্যে দেড় একর জায়গা জবরদখল করে অবৈধ বাজার নির্মাণ করা হয়েছে। এলাকাবাসী বিভিন্ন সময়ে বার বার সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরকে বিষয়টি অবহিত করলেও কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।
জানা গেছে, বঙ্গবন্ধু সেতু-ঢাকা মহাসড়কে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা পৌরসভার পৌলী ব্রিজের উত্তরে পূর্ব পাশে ১৩ জন ও মহাসড়কের পশ্চিম পাশে ৫ জন ব্যক্তি স্থানীয় ও রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ইতোমধ্যে প্রায় দেড় একর জায়গা জবর দখল করে ব্যবসা চালাচ্ছেন। পূর্বপাশে জবর দখলকৃত সরকারি জায়গায় স্থাপনা নির্মাণ করে কতিপয় ব্যক্তি ভাড়া দিয়ে একটি অবৈধ মার্কেট নির্মাণ করেছেন। তারা কেউই দোকানঘর নির্মাণ করে নিজেরা ব্যবহার করছেন না, সবাই স্থানীয় ব্যক্তিদের কাছে রীতিমতো জামানত নিয়ে মাসিক চুক্তিতে ভাড়া দিয়েছেন।

পৌলী বাজারের ভাড়াটিয়া ব্যবসায়ীরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে টিনিউজকে জানায়, তারা ১-২ বছরের জন্য জামানত দিয়ে মাসিক ভাড়ায় দোকান পরিচালনা করছেন। যাঁদের কাছ থেকে ভাড়া নিয়েছেন তারা এসব দোকানের মালিক না হলেও তারাই দখলদার- সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) কর্তৃপক্ষও তাদের কিছু বলে না। তারা প্রভাবশালী হওয়ায় ভাড়া নিয়েই ব্যবসা চালাতে হয়।
এ বিষয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী হাজী আলাউদ্দিন টিনিউজকে জানান, পূর্বপাশে রেললাইন ও পশ্চিমপাশে মহাসড়ক মাঝখানে সওজের ফাঁকা জায়গা অত্যন্ত নিচু ছিল। তিনি মাটি ভরাট করে ঘর উত্তোলন করে জনগণের স্বার্থে নামমাত্র মূল্যে ভাড়া দিয়েছেন। এলাকার স্বার্থে একটি বাজার প্রতিষ্ঠা করা অবশ্যই উন্নয়ন করা। তিনি কোন কিছু গোপনে করেন নি। তাছাড়া সওজ এই জায়গা ব্যবহার কওে না, তাদের কোন তদারকিও নেই।
নতুন গড়ে ওঠা পৌলী বাজার কমিটির সভাপতি জমির উদ্দিন আমিরী টিনিউজকে জানান, এলাকার মানুষের আগ্রহে সওজের জায়গার উপর ছোট একটি বাজার আপনা-আপনি গড়ে ওঠেছিল। প্রভাবশালী বিএনপি নেতা হাজী আলাউদ্দিন সওজের ৭০ শতাংশ জায়গা জবরদখল করে স্থাপনা নির্মাণ করেছেন। তিনি জামানত নিয়ে প্রায় ২০টি দোকান মাসিক চুক্তিতে ভাড়া দিয়েছেন। তিনি বাজারটি ঠিক রেখে জবর দখলকারীদের উচ্ছেদ করার দাবি জানান।
এলেঙ্গা পৌরসভার প্যানেল মেয়র সুকুমার ঘোষ টিনিউজকে জানান, জবর দখল করার শুরুতে এলাকাবাসীর মৌখিক অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি সওজ’কে বার বার জানানো হয়েছে। তারা কোন ব্যবস্থা নেয়নি। তিনি দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সওজের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
এ বিষয়ে টাঙ্গাইল সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী আমিমুল এহসান টিনিউজকে জানান, সড়ক বিভাগের জমি দখলের বিষয়টি জানা নেই। সরেজমিনে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ব্রেকিং নিউজঃ