অন্তসত্তা মা ও শিশু হত্যাকারী রাইজুদ্দিন আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে

শেয়ার করুন

আদালত সংবাদদাতা ॥
টাঙ্গাইলে অন্তসত্তা মা ও তার শিশু মেয়ের হত্যাকারী রাইজুদ্দিন (৩৬) আদালতে এই নৃশংস হত্যার দায় স্বীকার করে সোমবার (১৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। এর আগে রবিবার (১৩ অক্টোবর) রাতে অভিযান চালিয়ে টাঙ্গাইল পৌরসভার ভালুককান্দি এলাকা থেকে আসামী রাইজুদ্দিনকে (৩৬) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ সময় চুরি যাওয়া ৮ লাখ টাকা ও হত্যায় ব্যবহৃত ছুরি, দুইটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।
টাঙ্গাইল কোর্ট ইন্সপেক্টর তানবীর আহাম্মেদ টিনিউজকে জানান, টাঙ্গাইল পৌর শহরের ভাল্লুককান্দী এলাকায় অন্তঃসত্ত্বা মা লাকী বেগম (২২) তার শিশু মেয়ে হুমায়রা আক্তার আলিফাকে (৪) কুপিয়ে ও জবাই করে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত ঘাতক রাইজুদ্দিন (৩৬) হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
সোমবার (১৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সদর আমলী আদালতে রাইজুদ্দিন দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। পরে আদালতের বিচারক আবদুল্লাহ আল মাসুম জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করেন। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালতের বিচারক। রাইজুদ্দিন টাঙ্গাইল শহরের চরপাতুলি এলাকার মৃত সুকুম উদ্দিনের ছেলে।
উল্লেখ, শনিবার (১৩ অক্টোবর) রাত ১২টার দিকে টাঙ্গাইল পৌরসভার ভালুককান্দী এলাকায় নৃশংস এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত লাকীর বাবার বাড়ি সদর উপজেলার হুগড়া ইউনিয়নের রামনগর গ্রামে। ঘটনার দিনই নিহত লাকির পিতা হাসমত আলী বাদি হয়ে টাঙ্গাইল সদর মডেল থানায় অজ্ঞাতনামা আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। আসামী রাইজুদ্দিন একজন ফল ব্যবসায়ী। আসামী রাইজুদ্দিন নিহতের স্বামী ফ্লেক্সি লোড ও বিকাশের ব্যবসায়ী আল আমিনের বন্ধু ছিল।

শেয়ার করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ব্রেকিং নিউজঃ